ইয়েমেনকে ২০ কোটি মার্কিন ডলার সহায়তার প্রস্তাব সৌদি আরব ও আরব আমিরাতের

সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাত সোমবার পবিত্র রমজান মাসে ইয়েমেনকে ২০ কোটি মার্কিন ডলার সহায়তার প্রস্তাব দিয়েছে। দেশ দুটির সামরিক জোট ইয়েমেনে হুতি বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে লড়ছে।

রিয়াদ ও আবুধাবি একসঙ্গে এই সহায়তার কথা ঘোষণা করেছে। নভেম্বর মাসে ইয়েমেনে ক্ষুধা ও রোগ মোকাবেলায় মিত্র দেশদুটি ৫০ কোটি মার্কিন ডলারের সহায়তার যে প্যাকেজের কথা জানিয়েছিল এটি তারই অংশ।

খবর বার্তা সংস্থা এএফপি’র।

উভয় দেশের কর্মকর্তারা বলেন, এই সহায়তা বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচি (ডব্লিউএফপি), জাতিসংঘের শিশু বিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফ ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)সহ জাতিসংঘের বিভিন্ন সংস্থার মাধ্যমে দেয়া হবে।

কিং সালমান হিউম্যানিটারিয়ান এইড অ্যান্ড রিলিফ সেন্টার এক বিবৃতিতে জানায়, ‘সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাত ইয়েমেনে অপুষ্টি, দুর্ভিক্ষ ও রোগ মোকাবেলায় কৌশলগত অংশীদার বিশেষত ডব্লিউএফপি, ইউনিসেফ, ডব্লিউএইচও এর সাথে একটি জরুরি কর্মসূচি বাস্তবায়নে আগ্রহী।’

২০১৫ সালে সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাত ইয়েমেনে হুতি বিদ্রোহীদের সঙ্গে যুদ্ধে জড়িয়ে পড়ে। হুতিরা দেশটির প্রেসিডেন্ট আব্দেরাব্বো মানসুর হাদিকে উচ্ছেদ করে রাজধানী সানা দখল করে নেয়।

জাতিসংঘ ইয়েমেনে বিশ্বের সবচেয়ে ভয়াবহ মানবিক বিপর্যয় দেখা দিয়েছে উল্লেখ করে দেশটির জন্য ১৮শ’ কোটি মার্কিন ডলার সহায়তা চেয়েছে।

চার বছর ধরে চলা এই যুদ্ধে ইয়েমেনে মানবিক বিপর্যয়ের কারণে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট বিশ্ব সম্প্রদায়ের চাপের মুখে রয়েছে।
ইয়েমেন সরকার সমর্থিত সামরিক জোট ও হুতি বিদ্রাহী উভয়ের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ উঠেছে।

ডব্লিউএইচও জানিয়েছে, ২০১৫ সাল থেকে শুরু হওয়া এই যুদ্ধে ইয়েমেনে আনুমানিক ১০ হাজার লোক প্রাণ হারিয়েছে।
তবে মানবাধিকার সংস্থাগুলো মৃতের সংখ্যা আরো কয়েকগুণ বেশি বলে দাবি করেছে।

সুত্র : বাসস