লক্ষ্মীপুরে প্রেমিকা বৃষ্টিকে পেতে যে ভাবে খুন করা হয় বন্ধু মেহেরাজকে

নিজস্ব প্রতিবেদক :  

লক্ষ্মীপুরে বস্তাবন্দী যুবকের খুনের রহস্য উদঘাটন করা হয়েছে। লক্ষ্মীপুর জেলা পুলিশের নির্দেশে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আনোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে একটি টিম চন্দ্রগঞ্জ থানার মেহেরাজ হত্যা মামলার অন্যতম আসামী আব্দুল্লাহ আল মামুন (১৯) কে মঙ্গলবার রাত ৮টার সময় অভিযান পরিচালনা নিজ এলাকা সুধারাম থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেফতারকৃত মামুন বস্তাবন্দী যুবক মেহরাজকে প্রেম ঘঠিত করণে হত্যা করেছে বলে শিকার করেন এবং হত্যার সময় ব্যবহৃত মোটরসাইকেটি উদ্ধার করে পুলিশ।

শিকারোক্তীমূলক বাকী আসামী তানভীর (২০) ও মামুন (১৯), রাশেদ। তাদেরকে গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

হত্যা মামলায় গ্রেফতারকৃত আসামী আব্দুল্লাহ্ আল মামুন তার শিকারোক্তীতে জানান, মেহেরাজ (১৯), তানভীর (২০) ও মামুন (১৯) পরস্পর ঘনিষ্ঠ বন্ধু ও একই এলাকার বাসিন্দা। ঘাতক তানভীর ও মামুন উভয়েই নোয়াখালীর জেলার সুধারাম থানার উদয় সাধুর (উদার হাট) হাটের সততা বস্ত্রালয়ের কর্মচারী।

বৃষ্টি নামক একটি মেয়ের সাথে প্রেমের সম্পর্কের কারনে তানভীর ও মেহেরাজের দ্বন্দ্ব সৃষ্টি হয়।

এ কারণে তানভীর মেহেরাজকে খুনের পরিকল্পনা করে। এসময় তার বন্ধ, মামুন, রাশেদের সাথে আলোচনা করে মেহরাজকে হত্যার পরিকল্পনা করেন। সেই পরিকল্পনায় গত রোববার (২৪ ফেব্রুয়ারী) বিকালে তারা উদয় সাধুর বাজারের একটি দোকান থেকে চেতনা নাশক ঔষুধ, অপর একটি মুদী দোকান থেকে প্লাষ্টিকের দুটি সাদা রঙের বস্তা ও একই বাজারের অপর কনফেকশনারীর দোকান থেকে ০৫টি স্পীড কোল্ড ড্রিংকস কিনে ০৪ বন্ধু মিলে একটি জারা মোটর সাইকেলযোগে সুধারাম থানার মুন্সী তালক গ্রামের চলে যায়। সেখানে রাস্তার উপরে মোটর সাইকেল রেখে ৪ বন্ধু মিলে একটি নির্জন খোলা মাঠে গিয়ে আড্ডা মারে। আড্ডার এক পর্যায়ে সন্ধ্যা ৭টার দিকে ৩ বন্ধু কৌশলে ভিকটিম মেহেরাজকে চেতনা নাশক ঔষুধ মিশানো ‘স্পীড কোল্ড ড্রিংকস’ পান করায়। কিছুক্ষণের মধ্যে মেহেরাজ অজ্ঞান হয়ে পড়লে তার প্যান্টের বেল্ট গলায় পেচিয়ে শ্বাসরোধ করে তাকে হত্যা করে। পরে মেহরাজকে বস্তায় ঢুকিয়ে তানভীর ও মামুন মোটর সাইকেল যোগে লক্ষ্মীপুর জেলার চন্দ্রগঞ্জ থানাধীন পূর্ব সৈয়দপুর গ্রামস্থ টক্কার পুল নামকস্থানে নিয়ে রাত্র ৮টার সময় ব্রীজের ওপর থেকে পানিতে ফেলে দেয়। এরপর ঘাতক তানভীর মোটর সাইকেল যোগে ও মামুন ভাড়াকরা সিএনজি যোগে দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (২৮ ফেব্রুয়ারী) সন্ধ্যায় চন্দ্রগঞ্জ থানাধীন চরশাহী ইউপির টক্কারপোল নামক এলাকা থেকে বস্তাবন্দি মেহরাজের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।