সংরক্ষিত আসনে শিউলীকে এমপি করার দাবী লক্ষ্মীপুরবাসীর

নিজস্ব প্রতিবেদক :

নারী নেত্রী জাকিয়া সৃজনী শিউলী। ২০০৫ সালে আওয়ামীলীগ তখন বিরোধী দল। বিএনপি-জামায়াত দুঃশাসন আমলে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশ্বস্থ ভ্যানগার্ড হয়ে রাজপথে আপোষহীনভাবে সংগ্রাম করেছিলেন শিউলী।  ওই সময় নিপীড়নের বিরুদ্ধে নেতৃত্ব দিতে গিয়ে নির্যাতীত হয়ে সর্বপ্রথম দ্রুত ট্রাইব্যুনাল বিচার আইনে মিথ্যা মামলায় প্রধান আসামী হয়ে কারাবরণ করেন তিনি। বহু মামলা-নির্যাতনের পরও থেমে থাকেননি রাজনৈতিক জীবন। 

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে লক্ষ্মীপুরের  চারটি আসনেই  দূর্বার ভূমিকা পালন করেন শিউলী। গ্রাম-মহল্লা, বাড়িতে-বাড়িতে গিয়েও চেয়েছেন নৌকায় ভোট।  শিক্ষা, দক্ষ ও সাহসীকতার পরিচয় দিয়ে নিজের দল ও দলের বাহিরে গিয়ে লক্ষ্মীপুরের অবহেলিত মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনের চেষ্টা চালিয়েছেন। তাই জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত মহিলা আসনে জাকিয়া সৃজনী শিউলীকেই এমপি হিসেবে মনোনীত করার দাবী লক্ষ্মীপুর জেলাবাসী।

জাকিয়া সৃজনী শিউলী বাংলাদেশ যুবমহিলা লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক (চট্টগ্রাম বিভাগের দায়িত্ব প্রাপ্ত)। এছাড়াও ২০০৩-২০১৭ সাল পর্যন্ত তিনি ঢাকা উত্তর মহানগর ধানমন্ডি থানা যুবমহিলা লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন। নিজের দক্ষতা, সাহসিকতা , কর্মসৃজন ও কর্মীবান্ধব মানসিকতায় দল ও দলের বাহিরের জনগনের ব্যাপক আস্থা অজর্ন করেছেন। যার বহিঃপ্রকাশ হিসেবে বিভিন্ন সোশ্যাল  মিডিয়ার মাধ্যমে  তাকেই এমপি করার দাবির ঝড় তুলতে দেখা গেছে ।

আওয়ামীলীগের ত্যাগী ও কর্মীবান্ধব নেত্রী জাকিয়া সৃজনী শিউলী ১৯৭৫ সালের ১২ অক্টোবর লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার রামচন্দ্রপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর বাবা আব্দুল মতিন ও মা আফিয়া খাতুন মায়া। তাঁরা দুজনই পরলোকগমন করেছেন বহু আগেই। জীবদ্দশায় বাবা আবদুল মতিন  ছিলেন ডায়মন্ড ট্যানারী প্রাইভেট লিমিটেড এর পরিচালক। যার বর্তমান পরিচালক শিউলী নিজেই। শিক্ষাজীবনে শিউলী ঢাকা’র হোম ইকনোমিক্স কলেজে থেকে হোম ম্যানেজমেন্ট ডিগ্রী অজর্ন করেন।

ব্যক্তিগত জীবনে জাকিয়া সৃজন শিউলী  আলবার প্রেপার্টিজ লিঃ’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক স্থাপতি মোঃ মনোয়ার হাবীব তুহিন (বি.আর্ক-বুয়েট, এফ.আই..এ.বি)সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। রাজনীতির পাশাপাশি তিনি একজন সংসারী ও মমতাময়ী নারী।

এছাড়াও শিউলী বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সাথে জড়িত হয়ে মানুষের কল্যাণে কাজ করেছেন। সামাজিক জীবনে তিনি চন্দ্র মল্লিকা, লায়ন্স ক্লাবের সাবেক পরিচালক, নর্থ ঢাকা এপেক্স ক্লাবের সাবেক সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। তাছাড়াও তিনি সৃজন একাডেমী’র প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান।

দলীয় নেতাকর্মীরা জানায়, বিগত দিনে আ’লীগ বিরোধীদলে থাকার সময় যখন বিএনপির সন্ত্রাসীদের দমন নিপীড়নের কারনে রাজপথে থাকা ছিলো দূরবিসহ, তখন নারী নেত্রী শিউলি শত শত মিছিলের নেতৃত্ব দিয়েছেন। আস্থা, ভরসা ও ভালোবাসার প্রতীক ছিলেন দলীয় নেতাকর্মীদের নিকট। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে অবৈধভাবে গ্রেফতারের প্রতিবাদে রাজপথে ছিলেন সক্রিয়, জননেত্রীর মুক্তি আন্দেলনেও ছিলেন লড়াকু সৈনিক। হয়েছিলেন বিএনপি ক্যাডার ও পুলিশের হামলা মামলার শিকার।

এবারের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন চেয়েছিলেন শিউলী। দলীয় মনোনয়ন বঞ্ছিত হয়েও মহাজোটের প্রার্থীদের বিজয়ী করতে জেলার ৪টি আসনে ব্যাপক গণসংযোগ, জনসভা, পথসভা ও বিশাল বিশাল মিছিলের নেতৃত্ব দিয়েছেন। দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে শ্রম, সংগ্রাম, ত্যাগ ও তিতিক্ষার মূল্যায়নে শিউলীকে জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি হিসেবে মনোনীত করবে এমনটাই প্রত্যাশা নেতাকর্মীরা।

জানতে চাইলে নারী নেত্রী জাকিয়া সৃজনী শিউলী বলেন, রাজনীতি নিজের জন্য করি না। বঙ্গবন্ধুর আদর্শে গড়া সোনার বাংলাকে রক্ষা এবং জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতেই রাজপথে সংগ্রাম করেছি। আগামীতেও করে যাবো। প্রিয় নেত্রী সংরক্ষিত মহিলা আসনে আমাকে এমপি মনোনিত করলে লক্ষ্মীপুরের জনগণের ভাগ্য উন্নয়নে বিরামহীন ভাবে কাজ করে যাবো।

তিনি বলেন, লাল পাশ বই  আর দামী গাড়িতে ঘুরার জন্য দায়িত্ব নিতে চাই না। উপকূলীয় এ অঞ্চলের শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও বাসস্থান নিশ্চিত করতে একজন স্বচ্ছ প্রতিনিধিত্ব করতে চাই। আওয়ামীলীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমার বিগত দিনের ত্যাগ ও বিশ্বস্ততা মূল্যায়ন করে  সুদৃষ্টি দেবেন বলে তিনি প্রত্যাশা করেন।