নড়াইল-২ আসনে শেষ মুহূর্তে মাশরাফির প্রচারণা তুঙ্গে

নড়াইল : শেষ মুহূর্তে মাশরাফির প্রচার-প্রচারণা মুখরিত হয়ে উঠেছে নড়াইলের বিভিন্ন জনপদ। দলমত নির্বিশেষে সবাই ছুটছেন মাশরাফির নির্বাচনী প্রচারণায়। ভোটের মাঠে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সফল ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার। মাশরাফি নড়াইল-২ আসনে আওয়ামীলীগ মনোনীত সংসদ সদস্য প্রার্থী হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এ আসনে ধানের শীষ প্রতীকে ঐক্যফন্ট সমর্থিত প্রার্থী হচ্ছেন এনপিপি’র (ফরহাদ) চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট ফরিদুজ্জামান ফরহাদ। এছাড়া অন্যান্য প্রতিন্দ্বন্দি প্রার্থী হচ্ছেন হাতপাখা প্রতীকে ডা: এস এম নাসির উদ্দীন (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ), আম প্রতীকে মো. মনিরুল ইসলাম (এনপিপি,ছালু), মিনার প্রতীকে মো: মাহাবুবুর রহমান (ইসলামী ঐক্যজোট), তারা প্রতীকে ফকির শওকত আলী (জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল, রব)।
লোহাগড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সিকদার আব্দুল হান্নান বলেন, আসন্ন সংসদ নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয়ী হবেন নড়াইল তথা সারা বাংলাদেশের গর্ব মাশরাফি বিন মর্তুজা। ভোটাররা মাশরাফিকে এখন আর একটি দলের প্রার্থী হিসেবে ভাবছেন না।টাইগার দলপতি মাশরাফি এখন সব ভোটারদের প্রিয় প্রার্থী হিসেবে পরিণত হয়েছেন।
লোহাগড়া পৌরসভার মেয়র আশরাফুল আশরাফ জানান, মাশরাফির আগমনের কথা শুনে প্রত্যেকটি জায়গা মুহূর্তের মধ্যে লোকে লোকারণ্য হয়ে যাচ্ছে। প্রিয় অধিনায়ক ও নেতাকে এক নজর দেখার জন্য ঘন্টার পর ঘন্টা পথে পথে মোড়ে মোড়ে অপেক্ষা করছেন ভোটার ও ভক্তরা।
লোহাগড়া উপজেলার আমাদা গ্রামের প্রবীণ মুক্তিযোদ্ধা মো. ইউনুস গাজী ও ছলেমান মন্ডল জানান, মাশরাফিকে একনজর দেখতে পেরে আত্মতৃপ্তি পেয়েছি। মাশরাফি আমাদের বুকে জড়িয়ে ধরে দোয়া চেয়েছেন।আমরাও তার জন্য দোয়া করেছি।
জানা গেছে, গত শনিবার মাশরাফি বিন মর্তুজা ঢাকা থেকে নড়াইল ফিরে প্রতিদিন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত বিভিন্ন পথসভায় বক্তৃতা দিচ্ছেন এবং গণসংযোগ করছেন।এদিকে, মাশরাফি আজ বৃহস্পতিবার এক বার্তায়, প্রগতিশীল ও উন্নত নড়াইল পেতে সকলকে নৌকা মার্কায় ভোট দেয়ার আহবান জানিয়েছেন। নড়াইলকে সুন্দর, শক্তিশালী ও সমৃদ্ধশালী দেখতে এবং মডেল জেলা বানাতে প্রতিটি পথ সভায় নৌকা মার্কায় ভোট চেয়েছেন তিনি। সর্বত্রই একটি কথা বলেছেন, আমি আপনাদের সন্তান। প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী ও তার সমর্থকদের প্রতি সম্মান জানিয়ে বলেছেন, তারা যেন কোনভাবেই অসম্মানিত না হন।
নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট কাজী বশিরুল হক বলেন, মাশরাফির প্রচারণায় যোগ দিতে সারা দেশ থেকে শতাধিক ভক্ত নিজের ইচ্ছায় নড়াইল এসে নিয়মিত প্রচার প্রচারণা চালাচ্ছেন। বগুড়ার শাহজানপুর থেকে আসা আজিজুল হক কলেজের ইতিহাস বিভাগের অনার্সের ছাত্র মো: সাখাওয়াত হোসেন জানান, তিনি গত ১৬ ডিসেম্বর মাশরাফির জন্য প্রচারণায় অংশ নিতে নড়াইল এসেছেন। প্রত্যেকদিন গলায়, বুকে ও পিঠে প্লাকার্ড ঝুলিয়ে নৌকায় ভোট চেয়ে বেড়াচ্ছেন।নির্বাচন শেষে মাশরাফির জয় দেখে নড়াইল ছেড়ে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওয়ানা হবেন বলে তিনি জানান। নাইম পারভেজ নামে এক ভক্ত পটুয়াখালী থেকে নড়াইলে মাশরাফির জন্য ভোট চাইতে এসেছেন। মাশরাফি ভাইকে জয়ের মালা পরিয়েই নড়াইল ছাড়বো বলে তিনি জানান।
আমাদা আদর্শ কলেজের অধ্যক্ষ মো: আল ফয়সাল খান বলেন,আমরা পেশাজীবীরা মাশরাফিকে ভোট দিতে ঐক্যবদ্ধ হয়েছি। মাশরাফি আমাদের গর্ব, মাশরাফি আমাদের সম্পদ বলে তিনি উল্লেখ করেন।
জেলা আওয়াম লীগের সহ-সভাপতি শিকদার আজাদ রহমান বলেন, মাশরাফির গনসংযোগকালে মানুষের ঢল নামছে। নির্বাচনে মাশরাফি স্মরণকালের ভোট পাবেন বলে তিনি আশাবাদী।
জেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, নড়াইল-২ আসন নড়াইল পৌরসভা, সদর উপজেলার ৮টি ইউনিয়ন এবং লোহাগড়া পৌরসভা ও লোহাগড়া উপজেলার ১২টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত। এ আসনে বর্তমানে মোট ভোটার সংখ্যা ৩ লাখ ১৭ হাজার ৭৮২ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৫৭ হাজার ১০৫জন এবং মহিলা ভোটার রয়েছে ১ লক্ষ ৬০ হাজার ৬শ ৭৭ জন।

–বাসস