শিল্পকলায় অনুষ্ঠিত হলো ‘আলোছায়ার গানগুলি’

Print Friendly, PDF & Email

ভারতের কলকাতার দুই শিল্পী গবেষক ও সংগীতজ্ঞ ড. দেবজিত বন্দ্যোপাধ্যায় এবং বিশিষ্ট সংগীতশিল্পী ঋদ্ধি বন্দ্যোপাধ্যায় গান গেয়ে শ্রোতাদের মন জয় করলেন।
দুই শিল্পী ‘আলোছায়ার গানগুলি’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে দেড় ঘন্টাব্যাপী গেয়েছেন কাব্যগান ও মঞ্চনাটকের গান। এতে পঞ্চকবির গান, লালন, রবীন্দ্র নাটকসহ কলকাতার বিভিন্ন নাট্যদলের নাটকের গান তারা পরিবেশন করেন।

ব্যতিক্রমধর্মী এই গানের আসর গতকাল রাতে যৌথভাবে আয়োজন করে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি ও নাটকের দল ‘থিয়েটার’। শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় চিত্রশালা মিলনায়তনে অনুষ্ঠানের শুরুতে দুই শিল্পীকে শুভেচ্ছা জানিয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এতে সভাপতিত্ব করেন শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী। বক্তব্য রাখেন একাডেমির সচিব মো. বদরুল আনাম ভূঁইয়া এবং সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার।

পরে দুই শিল্পীকে পুস্পতোড়া প্রদান করা জয়। উত্তরীয় পড়িয়ে দেন লিয়াকত আলী লাকী।
রামেন্দু মজুমদার বলেন, সম্পূর্ণ ব্যাতিক্রমধর্মী এই গানের অনুষ্ঠান। নাটকের নাটকের গান নিয়ে এ ধরণের অনুষ্ঠান আরো আগেই হওয়া প্রয়োজন ছিল। কারণ নাটকে গানের সংযোজন বহু পুরণো কাল থেকে হয়ে আসছে। একাডেমি ভারতের খ্যাতিমান দুই শিল্পীর মাধ্যমে অনুষ্ঠানটি করে আমাদের কর্তব্যকে পালন করলো। তিনি কলকাতার দুই শিল্পীকে অভিনন্দন জানাান।

লিয়াকত আলী লাকী বলেন, নাটকের গান ও কাব্যগান গাওয়া হয়েছে অনেক। কিন্তু শুধু এই গানকে নিয়ে তেমন কোন অনুষ্ঠান অতীতে হয়নি। একাডেমির সংগীত বিভাগ এই বিয়ষটি নিয়ে ভাবছিল বহুদিন ধরে। আর শুরু হলো কাব্যগান ও বাংলা নাটকের ইতিহাসের বেশ কিছু চিরায়ত গান নিয়ে।

অনুষ্ঠানে নাট্য সংগীতের বিশিষ্ট গবেষক-শিল্পী দেবজিত বন্দ্যোপাধ্যায় ও শিল্পী ঋদ্ধি বন্যোপাধ্যায়ের জীবনী পাঠ করে শোনানো হয়। এতে দুই শিল্পীর কর্মজীবন উঠে আসে। বাংলা ভাষা ও বাংলা গানের জগতে ঋদ্ধি বন্দ্যোপাধ্যায় ‘পঞ্চকবি কন্যা’ হিসেবে পরিচিতি। অনুষ্ঠানে সেই পঞ্চ কবি দ্বিজেন্দ্রলাল, রজনীকান্ত ও অতুল প্রসাদের গান পরিবেশন করেন তিনি। দেবজিত বন্দ্যোপাধ্যায় পরিবেশন করেন রবীন্দ্রনাথের নাটকের গান, লালন, জ্যোতিরিন্দ্রনাথ ও কলকাতা থিয়েটার মঞ্চের বেশ কয়েকটি গান।

সুত্র- বাসস