‘বিশ্বের কোনো শক্তি রাম মন্দির নির্মাণে বাধা দিতে পারবে না’

Print Friendly, PDF & Email

বিশ্বের কোনো শক্তি রাম মন্দির নির্মাণে বাধা দিতে পারবে না বলে মন্তব্য করেছেন ভারতের কেন্দ্রীয় পানিসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী ও বিজেপির সিনিয়র নেত্রী উমা ভারতী। তিনি বলেন, রাম মন্দির ওখানেই হবে যেখানে মন্দিরের জমি রয়েছে।

রাম মন্দির নির্মাণ প্রসঙ্গে আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবত ও উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের মন্তব্যের পর বৃহস্পতিবার উমা ভারতী এমন মন্তব্য করলেন।

আরএসএস প্রধান সম্প্রতি বলেছেন, আদালতের রায়ের অপেক্ষা না করে সংসদে আইন এনে অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণ করা হোক। অন্যদিকে, মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ বলেছেন, দেওয়ালীর সময় খুশির খবর নিয়ে অযোধ্যা যাচ্ছেন। সম্প্রতি কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ও বিজেপির সিনিয়র নেতা গিরিরাজ সিং বলেন, ‘হিন্দুরা যদি তাদের ধৈর্য হারিয়ে ফেলে তাহলে যেকোনো কিছুই ঘটে যেতে পারে!’

এবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রী উমা ভারতীও রাম মন্দির নির্মাণ ইস্যুতে নতুন আঙ্গিকে মাঠে নামলেন। তিনি বলেন, ‘উত্তরপ্রদেশে যোগী আদিত্যনাথ সরকার এবং কেন্দ্রে নরেন্দ্র মোদি সরকার ক্ষমতায় থাকার জন্য রাম মন্দির নির্মাণকে কেন্দ্র করে পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। উত্তর প্রদেশ ও কেন্দ্রে সংখ্যাগরিষ্ঠ (বিজেপি) সরকার রয়েছে। রাম লালার ভক্তদের কারণেই উত্তর প্রদেশের যোগী সরকার ও কেন্দ্রে নরেন্দ্র মোদি সরকার তৈরি হয়েছে। রাম লালার ভক্তবৃন্দের আন্দোলনের ফলেই ওই সরকার গঠিত হয়েছে। এ জন্য উভয় সরকারের কাছে অনেক প্রত্যাশা এবং এটিই (মন্দির নির্মাণের) সঠিক সময়।’

রাম জন্মভূমি নিয়ে পুরোনো দিনের আন্দোলনের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে উমা ভারতী বলেন, ‘রাম মন্দির আন্দোলনে আমি অংশ নিয়েছিলাম। আমি আমার কাজ করেছি এবার সেখানে গ্র্যান্ড মন্দির নির্মাণ দেখতে চাই।’

১৯৯০ সালে রাম মন্দির আন্দোলনে সক্রিয়ভাবে অংশ নিয়েছিলেন তিনি। গতবছর রাম মন্দির নির্মাণ প্রসঙ্গে উমা ভারতী বলেছিলেন, এটা আমার বিশ্বাস ও গর্বের বিষয় এবং এ জন্য জেলে যেতে হলেও যাব, ফাঁসিতে চড়তে হলেও যাব।

প্রধান বিরোধীদল কংগ্রেসের সভাপতি রাহুল গান্ধীর উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, উনি তাদের সঙ্গে অযোধ্যায় গিয়ে শিলান্যাস করান। তাহলে রাম মন্দির নির্মাণ নিয়ে তার যে পুরোনো পাপ আছে তা সব ধুয়ে মুছে যাবে।

উমা ভারতীর দাবি করেন, ২০১৪ সালে তারা যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন তা পূরণ করেছেন। ২০১৯ সালে পুনরায় বিজেপি সরকার গঠিত হবে।