সংলাপ নিয়ে আগে যা বলেছি তা ছিল পলিসি ম্যাটার : কাদের

Print Friendly, PDF & Email

জাতীয় নির্বাচন নিয়ে রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সংলাপ হবে না বলে আওয়ামী লীগ নেতারা নানা সময় মন্তব্য করলেও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে সংলাপে বসছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। এ বিষয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সংলাপ নিয়ে এর আগে আমরা যা বলেছি তা ছিল আমাদের পলিসি ম্যাটার।’

মঙ্গলবার (৩০ অক্টোবর) সচিবালয়ে সমসাময়িক রাজনৈতিক ইস্যু নিয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এ কথা বলেন।

ড. কামাল হোসেনের চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতাদের সঙ্গে সংলাপের সময় দিয়েছেন। বিএনপি ঐক্যফ্রন্টের সবচেয়ে বড় শরীক দল। ওই দিন গণভবনে এ সংলাপ অনুষ্ঠিত হবে।

এর আগে ঐক্যফ্রন্টের ৭ দফা দাবি ও ১১ দফা লক্ষ্যকে সংবিধান বিরোধী আখ্যা দিয়ে ওবায়দুল কাদেরসহ আওয়ামী লীগের অন্যান্য নেতারা বক্তব্য দিয়েছেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমি গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসীন মন্টুর সঙ্গে গতরাতে ফোনে আলাপ করেছি। কোনো কোনো পত্রিকায় দেখতে পেলাম আমি ১০ জনের নাম প্রস্তাব করেছি। এটা সর্বৈব মিথ্যা। আমি এমন কিছু বলিনি। বরং আমি মন্টু সাহেবকে বলেছি, আপনারা কয়জন আসতে চান। তিনি প্রাথমিকভাবে আমাকে বলেছেন, তারা ১৫ জন আসতে চায়। আমি বললাম, ১৫ জন কেন ২০/২৫ জনও আসতে পারেন। ইউ আর মোস্ট ওয়েলকাম।’

সংলাপটি আওয়ামী লীগের সঙ্গে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘সংলাপে কতজন আসবেন সেই তালিকা আজকে আমাদের অফিসে জানাবেন, এমনটাই মোস্তফা মহসীন মন্টু আমাকে জানিয়েছেন।’

আওয়ামী লীগের কতজন থাকবে -জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘তারা কতজন আসে লিস্টটা দেখি এরপর আমাদের কারা থাকবে সেটা আমরা পরে ঠিক করব।’

সংলাপ নিয়ে আগের দেয়া বক্তব্যের বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমাদের দলের নেতারা আমরা একই ভয়েসে কথা বলি। আমাদের পলিসি সরকার ও দলের যা ছিল তাই বলেছি। আমরা কিন্তু শিফট করিনি, শিফটের বিষয় নয়। এটা তো এমন নয়, দেশে একটা প্রতিবাদের ঝড়, দেশে একটা আন্দোলন মুখর অবস্থা। এই অবস্থায় সরকার নতি স্বীকার করে সংলাপে বসেছে, বিষয়টি তা নয়।’

তিনি বলেন, ‘বিষয়টি হচ্ছে ড. কামাল হোসেন সাহেব ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে আমাদের পার্টির সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়েছেন। গতকাল ক্যাবিনেট মিটিংয়ের পর অনানুষ্ঠানিক আলোচনায় নেত্রী বলেছেন- আমাদের সঙ্গে কেউ দেখা করতে চান, শেখ হাসিনার দরজা তো কারো জন্য বন্ধ হয় না। আমার দরজা খোলা আছে। দেখা করতে চান, চিঠি দিয়েছেন, আমি দেখা করব। বিষয়টি এমন।’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘তাদের ৭ দফা দাবির মধ্যে কিছু আছে সংবিধান সংশোধনের বিষয়, কিছু আছে আইন আদালতের বিষয়, আবার দু’একটি বিষয় আছে এটি সম্পূর্ণই নির্বাচন কমিশনের এখতিয়ার। সংলাপ নিয়ে এর আগে আমরা যা বলেছি সেটা আমাদের পলিসি মেটার। সেটা সরকার ও দলের পলিসি মেটার। এখন তারা দেখা করতে চান, ৭ দফা ও ১১ দফা লক্ষ্য নিয়ে আলাপও করতে পারেন, এখানে নিঃশর্ত। আমরা বলিনি যে, এই বিষয়টি নিয়ে আলাপ করতে হবে, এই বিষয় নিয়ে আলাপ করা যাবে না।’

এক প্রশ্নের জবাবে সড়ক পরিবহন মন্ত্রী জানান, আশা করছি ড. কামাল জামায়াতের কোনো নেতাকে সংলাপে আনবেন না।