সাবেক প্রেমিক যেভাবে বন্ধু হতে পারে

Print Friendly, PDF & Email

একটা সময় তার সঙ্গে রঙিন প্রেম ছিল। ছিল মানে এখন আর নেই। তাই বলে তাকে কি দুচোখের বিষ করে রাখবেন? যদি এমন হয়, দুজনেরই সমঝোতায়ই গুটিয়ে নিয়েছেন সম্পর্ক তাহলে কিন্তু তাকে ওভাবে না দেখলেও চলে। প্রেম না থাকলেও, থাকতে পারে বন্ধুত্ব। কিভাবে? জেনে নিন-

তবে সাবেক প্রেমিকটির সঙ্গে বন্ধুত্ব করার আগে নিজেকে কিছুটা সময় দিন। যতদিন পর্যন্ত আপনার মনে আগের সব স্মৃতি জ্বলজ্বল করবে ততদিন বন্ধুত্ব কোনোভাবেই সম্ভব নয়। মন থেকে সবকিছু সরিয়ে তবেই তাকে বন্ধু করুন।

বন্ধুত্ব করার পরে আর কখনোই দুজনে একান্তে সময় কাটাবেন না। সবসময় চেষ্টা করুন অন্যান্য বন্ধুদের সঙ্গে দলবেঁধে আড্ডা দিতে। যাতে তাকে শুধুই একজন বন্ধু মনে হয়, এর বেশি কিছু নয়।

একসঙ্গে সময় কাটাতে গিয়ে কখনো পুরানো স্মৃতি মনে করবেন না। অতীত ঝেড়েমুছে বর্তমানে মন দিন। তাতে উভয়েরই কল্যাণ।

কোনোরকম ফ্লার্টিং কিংবা মধুর খুনসুটিতে জড়াবেন না। নিজে তো করবেনই না, তাকেও কোনোভাবে প্রশ্রয় দেবেন না।

আপনাদের মধ্যে বন্ধুত্ব থাকা অবস্থায় সাবেক প্রেমিকটির নতুন কোনো প্রেমও হতে পারে। আপনি সে বিষয়ে একদমই নাক গলাতে যাবেন না যেন। তার সিদ্ধান্ত তাকেই নিতে দিন।

Premik-2

পুরানো কোনো ঝগড়াঝাটি বা ভুলবোঝাবুঝির প্রসঙ্গ তুলে আফসোস করবেন না। যা হওয়ার তা হয়েই গেছে। নতুন করে তা নিয়ে বলতে যাওয়া মানে অযথা সময় নষ্ট। সাবেক প্রেমিক কিছু বলতে চাইলে তাকেও থামিয়ে দেবেন।

রাতের সময়টা অনেকটাই আবেগের। তাই গভীর রাতে সাবেক প্রেমিকের সঙ্গে কোনোরকম ফোনকল কিংবা মেসেজ আদান-প্রদান করবেন না। নিজেকে সংযত রাখুন।

আপনি যদি নতুন করে কোনো সম্পর্কে জড়ান সে ব্যাপারেও সাবেক প্রেমিকের কোনোরকম মতামত চাইবেন না।

যতই আপনাদের মধ্যে বন্ধুত্ব থাকুক, তার উপরে মানসিকভাবে কখনোই নির্ভরশীল হয়ে পড়বেন না যেন। সম্পর্ক যতটা হালকা রাখা যায় ততই ভালো।

নিজের কাছে সবসময় স্বচ্ছ থাকুন। যদি তার জন্য মন আকুলি-বিকুলি করে তবে তার সঙ্গে বন্ধুত্বে না জড়ানোই ভালো। বরং নিজেকে একা রাখুন।