হাসপাতাল যেন রাজনীতির ময়দান না হয়

Print Friendly, PDF & Email

বিএনপি নেতাকর্মীদের প্রতি অনুরোধ জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসাকে কেন্দ্র করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) অঙ্গনটি যেন রাজনীতির ময়দান না হয়।

শনিবার রাজধানীর মোহাম্মদপুর আওয়ামী লীগের গণসংযোগ ও প্রচারপত্র বিতরণ পূর্বে সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন। বলেন, হাসপাতালে থাকা অন্য রোগীদের যেন অসুবিধা না হয়। আমরা আগেই বলেছি, এটি একটি বিশেষায়িত হাসপাতাল।

কাদের বলেন, আমরা বেগম জিয়ার চিকিৎসার জন্য আগে বলেছিলাম, কিন্তু আসেননি। আদালতের কারণে অবশেষে বেগম জিয়া হাসপাতালে এলেন। বিএনপি নেতাদের কাছে প্রশ্ন রেখে বলেন, এখন কোন হাসপাতালে? হাজার ঘাটের পানি ঘোলা করে রাজি হয়েছে। বিএনপি বেগম জিয়ার চিকিৎসাকে ইস্যু করে রাজনীতি করেছে। এটা করাই তাদের উদ্দেশ্য ছিল।

তিনি বলেন, নৌকার পক্ষের গণজোয়ার দেখেছি উত্তরবঙ্গে। লাখ লাখ মানুষের বাঁধ ভাঙা জোয়ার। চট্টগ্রাম, কুমিল্লা ও ফেনীতে গণজোয়ার। বিএনপির ঘাটি চকরিয়াতেও আওয়ামী লীগের গণজোয়ার দেখেছি। যেখানে যাচ্ছি, সেখানে হাজার হাজার মানুষের ঢল। সকালে রাজধানীর চকবাজারেও নৌকা নৌকা স্লোগানে মুখরিত। আজকে মোহাম্মদপুরেও জনতার ঢল।

নেতাকর্মীদের হুঁশিয়ার করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ক্ষমতার দাপট দেখাবেন না। মানুষ ক্ষমতার দাপটকে দেখতে পারে না। বারোটার আগে ভোট শেষ এই ধরনের কথা বলবেন না। ভোট শেষ হওয়ার আগ পর্যন্ত কেন্দ্রে থাকতে হবে। যতক্ষণ ভোট চলবে, ততক্ষণ কেন্দ্রে অবস্থান করতে হবে। ৯১ কথা ভুলে যাবেন না।

এক মাসের মধ্যে দেশের চেহারা বদলে যাবে। বিএনপির নেতা মওদুদ আহমেদের এ বক্তব্যের কঠোর সমালোচনা করেন তিনি।

বলেন, মওদুদ সাহেব একজন বহুরূপী। কোন বাণী থেকে তিনি এটা পেয়েছেন? মওদুদ আহমেদের কি একমাস শেষ হয়নি? আপনার দেখেন একমাসে দেশের চেহারা নাকি বিএনপি চেহারা পরিবর্তন হয়।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানকের সভাপতিত্বে প্রচারপত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন- আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, কৃষি ও সমবায় সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, সাংস্কৃতিক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাদেক খান প্রমুখ।