বিশ্ববাসী এখন বাংলাদেশকে সম্মান দেয় : প্রধানমন্ত্রী

Print Friendly, PDF & Email

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বিশ্ববাসী আগে বাংলাদেশের নাম শুনলে বলতো ঘূর্ণিঝড়, দুর্যোগ ও অভাব অভিযোগের দেশ। এখন বলে উন্নয়ন রোল মডেল বাংলাদেশ। বিশ্ববাসী এখন বাংলাদেশকে সম্মান দেয়। মানুষের পাশে দাঁড়ানো কিংবা সেবার চেয়ে মহৎ কাজ আর কিছু হতে পারে না।

শনিবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে আয়োজিত লায়ন ও লিও মহাসমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সূচনা হয়। বক্তব্য রাখেন আন্তর্জাতিক লায়ন্স ক্লাবের ডাইরেক্টর কাজী আকরাম উদ্দিন আহমেদ।

এছাড়া শেখ কবির হোসেন, স্বদেশ রঞ্জন সাহা, মো. আমিনুল ইসলাম লিটন বক্তব্য রাখেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২৩ বছরের সংগ্রাম ও ৯ মাসের মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে। আর দেশ স্বাধীন হয়েছে বলেই আজ বাংলাদেশে ২০ হাজার লায়ন। অথচ পাকিস্তানে লায়ন রয়েছে ৯ হাজার। বাংলাদেশের লায়নকে আজ আন্তর্জাতিক লায়ন্স ক্লাবের ডাইরেক্টর নির্বাচিত করে। দেশ যদি স্বাধীন না হতো এই সম্মান পেতেন না। বাংলাদেশের লায়নরা আজ সারাবিশ্বে সেবা দিচ্ছে এটাও আমাদের জন্য কম পাওয়া নয়।

শেখ হাসিনা বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মাত্র সাড়ে তিন বছরে এ দেশকে স্বল্পোন্নত দেশে পরিণত করেছিলেন। সাড়ে তিন বছরে এমন কোন সেক্টর নেই যে সেক্টরে তিনি কাজ করেননি। মানুষ যখন উন্নত হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন ঠিক তখনই বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করা হয়। এরপর যারা পেছনের দরজা দিয়ে ক্ষমতায় এসেছে তারা নিজেরা সম্পদের পাহাড় গড়েছে। মানুষের সেবায় তারা কোন কাজ করেনি। ২১ বছর পর আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে দেশের মানুষের জন্য কাজ শুরু করে। ৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত এ দেশ ছিল স্বর্ণযুগ। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর মানুষ যা কিছু পেয়েছে তা আওয়ামী লীগ সরকারই দিয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, যে জাতি রক্ত দিয়ে দেশ স্বাধীন করেছে সে জাতি কখনও পিছিয়ে থাকতে পারে না। আগামী ২১০০ সালে বাংলাদেশ কেমন হবে তার জন্য ডেল্টা প্লান করে ফেলেছি। দেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করতে হলে এক ভিশন থাকতে হবে। একটা পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করতে হবে।

পরিকল্পনা হাতে নিয়ে কাজ করছি বলেই বাংলাদেশ আজ এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশ অর্থনৈতিকভাবে শক্তিশালী হচ্ছে। আমাদের জিডিপি দাঁড়িয়েছে ৭ দশমিক ৮৬ ভাগ। বাজেটের ৯০ ভাগ নিজস্ব অর্থায়নে করছি। ১ লাখ ৭০ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন বাজেট করছি। মাথাপিছু আয় আজ ১৭৫১ মার্কিন ডলার। দেশ উন্নয়ন অগ্রগতির দিকে যাচ্ছে বলেই আমরা বড় বড় প্রজেক্ট হাতে নিতে পারছি এবং তা বাস্তবায়ন করতে পারছি।