লক্ষ্মীপুরে জেলেদের জালে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ

Print Friendly, PDF & Email

নিজস্ব প্রতিবেদক:

শেষ মূহুর্তে লক্ষ্মীপুরের মেঘনা নদীতে ধরা পড়ছে ঝাঁকে ঝাঁকে রূপালী ইলিশ। জাল গুটালেই উঠে আসছে মাঝারি ও বড় ধরনের ইলিশ। জেলেরা মাছ বিক্রির টাকায় পরিশোধ করছেন মহাজনের ঋণ ও স্বাচ্ছন্দ্যে চালাচ্ছেন সংসার। এতে বেজায় খুশি তারা। অন্যদিকে দাম কম হওয়ায় জেলার মাছ ঘাটগুলোতে সব সময় ভিড় থাকে ব্যবসায়ী ও ক্রেতাদের। এজন্য প্রতিদিনই ঘাটগুলোতে বিক্রি হচ্ছে কোটি টাকার মাছ।

জানা যায়, জ্যৈষ্ঠের শেষদিক থেকে আশ্বিন মাস ইলিশের মৌসুম। কিন্তু আষাঢ়ের ভরা মৌসুমেও কাঙ্খিত ইলিশের দেখা মিলেনি। গত দু সপ্তাহ আগেও নদীতে গিয়ে খালি হাতে ফিরতে হয়েছে জেলেদের। বর্তমানে চিত্র সম্পুর্ন ভিন্ন। শেষ মূহুর্তে জেলেদের জালে ধরা পড়ছে ঝাঁকে ঝাঁকে রূপালি ইলিশ। ইলিশ ধরাকে কেন্দ্র করে লক্ষ্মীপুরের হাজার হাজার জেলে পরিবারে উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে। নদীতে মাছ ধরতে জাল নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন জেলেরা। অন্যদিকে বেচাবিক্রিতে ব্যস্ত আড়ৎদার ও পাইকাররা। প্রতিদিনই জেলার ঘাটগুলোতে বিক্রি হচ্ছে কোটি টাকার মাছ।

আরো জানা যায়, লক্ষ্মীপুরের রামগতির আলেকজান্ডার থেকে চাঁদপুরের ষাটনল এলাকার ১শ কিলোমিটার পর্যন্ত ছোট-বড় প্রায় ৩০টি মাছ ঘাটে জেলেরা মাছ বিক্রি করছেন। জেলায় প্রায় ৬৫ হাজার জেলে রয়েছে। এদের মধ্যে নিবন্ধিত রয়েছে ৪৬ হাজার ৮শ জেলে।

মাছ ব্যবসায়ী বিল্লাল জানান, কিছুটা দেরিতে হলেও নদীতে এখন প্রচুর ইলিশ ধরা পড়ছে। হাঁকডাকে মুখরিত আড়ৎগুলোতে চলছে জমজমাট বেচাকেনা। এখন ৫’শ গ্রাম সাইজের প্রতি হালি (৪টি) ইলিশের দাম ৭-৮’শ টাকায়, ১কেজি সাইজের প্রতি হালি ২৪-২৫’শ টাকায়, জাটকার কেজি ১৮০-২০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আগামী ৭ অক্টোবর থেকে ২২ দিনের জন্য ইলিশ ধরা বন্ধ থাকবে। তাই এ সুযোগে যে যা পারছে ইলিশ কিনে মজুদ করছে। দাম নাগালের মধ্যে থাকায় ইলিশ কিনে খুশি সাধারণ মানুষ।

 

মতির হাট মাছ ঘাটের ক্রেতা সুমন জানান, গ্রামের বাজার থেকে নদীর পাড়ে মাছের দাম কম। তাই এখান থেকে মাছ কিনতে আসছেন। মাছের দাম নাগালের মধ্যে হওয়ায় ক্রয় করেছেন ১৭ হাজার টাকার ইলিশ।

ইয়াছিন আলি নামে এক আড়ৎদার বলেন, দুর দুরান্ত থেকে মাছ কিনতে আসে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা। ব্যবসায়ীদের পাশাপাশি ইলিশ কিনছেন বিভিন্ন পেশার মানুষ।

কমলনগরের মতির হাট, লধুয়া ঘাট, চর ফলকন, সদরের মজুচৌধুরী হাট, বুড়ির ঘাট, রায়পুরের চর কাচিয়াসহ বেশ কয়েকটি আড়তে চলছে জমজমাট বেচাকেনা। ইলিশের দাম অনেকটাই নাগালের মধ্যে বলেও জানান তিনি।

জেলা মৎস্য কর্মকর্তা এস এম মহিব উল্যা বলেন, প্রশাসনের সহযোগীতায় জেলা মৎস্য বিভাগ মা ইলিশ ও ঝাটকা ইলিশ সংরক্ষনসহ নানামুখী পদক্ষেপ গ্রহন করায় মেঘনা নদীতে ইলিশের উৎপাদন বৃদ্ধি পেয়েছে। বিগত সময়ে সফল অভিযানের ফলে বর্তমানে সুফল পাচ্ছে জেলেরা।

শীর্ষ সংবাদ/ এফএইচ