নরসিংদীতে নৌকায় বজ্রপাতে নিহত ৩, আহত ১০

Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক: নরসিংদীর মেঘনা নদীতে যাত্রীবাহী একটি নৌকায় বজ্রপাতে দুই নারীসহ তিনজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও ১০ যাত্রী।

মঙ্গলবার বিকেলে নরসিংদী সদর উপজেলার চরাঞ্চলের করিমপুরে মেঘনা নদীর মোহনায় এই বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন, নরসিংদীর উপজেলার আলোকবালী গ্রামের ফরিদা ইয়াসমিন (৫০), একই গ্রামের রেহেনা বেগম (৪০) ও সেলিম মিয়া (৪৫)। এ সময় গুরুতর আহতদের অবস্থায় ছানাউল্লাহ মিয়া, রুবেল মিয়া, আলী হোসেন, ফরহাদ মিয়া, জাবেদ ও ভুট্টু মিয়সহ ১০ জনকে নরসিংদী সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এদের মধ্যে দুজনকে মুমূর্ষু অবস্থায় ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানিয়েছেন, দুপুর আড়াইটার দিকে নরসিংদী শহরের বিপিন সাহার ঘাট থেকে শতাধিক যাত্রী নিয়ে ইঞ্জিনচালিত একটি নৌকা সদর উপজেলার চরাঞ্চল আলোকবালী যাচ্ছিল। নৌকাটি চরাঞ্চলের করিমপুরের কাছাকাছি পৌঁছলে মুষলধারে বৃষ্টির পাশাপাশি বজ্রপাত শুরু হয়। এরই মধ্যে নৌকাটি মেঘনা নদীর করিমপুর মোহনায় পৌঁছলে বজ্রপাতের শিকার হয়। এ সময় নৌকার ছাদে বসা সেলিম নামে একজন দগ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান। আহত হন আরও ১২ জন। পরে নৌকার অন্য যাত্রীরা তাদের উদ্ধার করে নরসিংদী সদর হাসপাতালে নিয়ে আসার পর আরও দুজন মারা যায়।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী মনু মিয়া বলেন, প্রচণ্ড বৃষ্টি হচ্ছিল। বিকট শব্দে বজ্রপাত। এরই মধ্যে যেন আগুনের একটি গোলা পড়ল। এ সময় ছাদে থাকা একজন সঙ্গে সঙ্গে পুড়ে যান। অন্যরা দগ্ধ হন।

অপর প্রত্যক্ষদর্শী হাসিব বলেন, বজ্রপাতের সাথে সাথে নৌকার ছাদে আগুন লেগে যায়। এ সময় হুড়োহুড়ি করে নৌকার বেশ কিছু যাত্রী পানিতে ঝাঁপ দেন। পরে আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়া হয়।

নরসিংদী সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক (আরএমও) সৈয়দ আমিনুল হক শামীম হতাহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।