বিএনপির সবকিছুতে ‘না না’

ঢাকা : সবকিছুতে ‘না না’ বলতে বলতে বিএনপি যেন কখন ‘নাই’ হয়ে যায়; এমন আশঙ্কা করছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী হাছান মাহমুদ।

রোববার (১৯ ডিসেম্বর) বিকেলে বাংলাদেশ টেলিভিশনের চট্টগ্রাম কেন্দ্রের রজতজয়ন্তী এবং ২৪ ঘণ্টা সম্প্রচার কার্যক্রমের উদ্বোধনের সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নে তিনি এই আশঙ্কা প্রকাশ করেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপির মধ্যে একটা না রোগ দেখা দিয়েছে, সবকিছুতেই যেন না বলা। সংলাপে যাবে না, নির্বাচনে যাবে না, এমনকি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনেও যাবে না। এখন আমি আশঙ্কার মধ্যে আছি না না বলতে বলতে বিএনপিটাই কখন নাই হয়ে যায়।’

আওলীগের এই যুগ্মসাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাহেবের দল বিএনপি ও জামাত বাংলাদেশে যদি নেতিবাচক রাজনীতি না করতো এবং স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তিকে নিয়ে দেশ বিরোধী ষড়যন্ত্র না করতো তাহলে ৫০ বছরে বাংলাদেশ আরো অনেক বেশি এগিয়ে যেতে পারত।

‘মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাহেবকে অনুরোধ জানাব, উনি শিক্ষিত লোক হয়ে যেন অশিক্ষিতের মত কথা না বলেন।’

‘বর্তমান সরকারের সময়ে বাংলাদেশে কোনো উন্নয়ন হয়নি বরং পেছনের দিকে চলে যাচ্ছে’- বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এই বক্তব্য নিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাহেবকে আমি জ্ঞানী এবং বুদ্ধিমান মানুষ বলে জানতাম, কিন্তু দলকানা হতে গিয়ে তিনি এ রকম বুদ্ধিহীন হয়ে গেছেন এবং জ্ঞান হারিয়ে ফেলেছেন এটা আমাকে আশ্চর্য করেছে।’

তিনি বলেন, ‘গত ৫০ বছরে বাংলাদেশ যেভাবে এগিয়েছে, এটি পৃথিবীর সামনে উদাহরণ। বাংলাদেশ সমস্ত সূচকে পাকিস্তানকে অতিক্রম করেছে। ১৯৭০-৭১ সালে পাকিস্তান আমাদের চেয়ে সব ক্ষেত্রে এগিয়ে ছিল। মাথাপিছু আয় ৫০ শতাংশ বেশি ছিল। সেই পাকিস্তান আজকে মানব উন্নয়ন, সামাজিক, অর্থনৈতিক সূচকসহ সব ক্ষেত্রে পিছিয়ে। এমনকি মাথাপিছু আয়ের ক্ষেত্রে আমরা ভারতকেও অতিক্রম করেছি।’

হাছান মাহমুদ বলেন, ‘আগে বাংলাদেশে ৪১ শতাংশ মানুষ দারিদ্র সীমার নিচে ছিলেন। সেটি এখন ২০ শতাংশের নিচে নেমে এসেছে। এগুলো আমার বক্তব্য নয়, বিশ্বব্যাংক আইএমএফসহ বিশ্ব সম্প্রদায়ের বক্তব্য, তাদের সমীক্ষায় এগুলো উঠে এসেছে।’

Print Friendly, PDF & Email