নারীশিক্ষার প্রসারে আন্তর্জাতিক সমর্থন চাইলেন চীনের ফার্স্ট লেডি

“জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা তথা ‘এজেন্ডা-২০৩০’ বাস্তবায়নের জন্য আন্তর্জাতিক সমাজের উচিত মেয়ে ও নারীদের শিক্ষার প্রসারে বেশি মনোযোগী হওয়া।’ বেইজিং থেকে ভিডিও-লিংকের মাধ্যমে ইউনেস্কোর ‘প্রাইজ ফর গার্লস অ্যান্ড উইমেনস এডুকেশন’ বিতরণ অনুষ্ঠানে এ কথা বলেছেন চীনের ফার্স্ট লেডি ও ইউনেস্কোর বিশেষ দূত ফেং লিইউয়ান।

তিনি বলেন, সারাবিশ্বের মেয়ে শিশু ও নারীদের শিক্ষার ওপর মহামারির নেতিবাচক প্রভাব স্পষ্ট। বিদ্যমান বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে সঠিক ও কার্যকর ব্যবস্থা নিয়ে তাদের জন্য ন্যায়সঙ্গত ও গুণগত মানসম্পন্ন শিক্ষা নিশ্চিত করতে হবে। ডিজিটাল প্রযুক্তি কাজে লাগিয়ে অনলাইন শিক্ষার মাধ্যমে সার্বিকভাবে দরিদ্র পরিবার ও দরিদ্র অঞ্চলের মেয়ে ও নারীদের শিক্ষাকে সহযোগিতা দেওয়া জরুরি। এতে তাদের নতুন প্রযুক্তির মাধ্যমে কর্মসংস্থান পাওয়া বা উদ্ভাবনের শক্তি ও সামর্থ্য বেড়ে যাবে। ডিজিটাল যুগে তারাও যেন সুখী জীবন উপভোগ করতে পারে, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। পাশাপাশি নারীদের স্বাস্থ্যবিষয়ক শিক্ষার ওপর বেশি গুরুত্ব দেওয়া উচিত, যাতে তাদের ও তাদের পরিবারের স্বাস্থ্যসচেতনতা বৃদ্ধি পায় এবং বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধের সামর্থ্য বাড়ে। সার্বিকভাবে তাদের মানসিক ও শারীরিক স্বাস্থ্যের মান উন্নত করতে হবে।

‘চীন ও জাতিসংঘের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত এ দ্বিতীয় পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান যেন এক নতুন সূচনা, যা মেয়ে শিশু ও নারীদের শিক্ষার উন্নয়নে নতুন জীবনশক্তি যোগাবে। আন্তর্জাতিক সমাজকে এ ক্ষেত্রে আরও মনোযোগী হতে হবে; দিতে হবে সমর্থন। জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা তথা ‘এজেন্ডা-২০৩০’ বাস্তবায়নের জন্য নতুন অবদান রাখবে এ পুরস্কার’, -বলেন তিনি।

সূত্র : চাইনা ডেইলি

Print Friendly, PDF & Email