সোহেল তাজের চোখে ‘অনুপ্রেরণা’ যে নারীরা

ঢাকা: সামাজিক মাধ্যমে চিত্রনায়িকা পরীমণির পোস্ট নিয়ে কয়েকদিন আগে সরব হয়েছিলেন সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সোহেল তাজ। যেখানে নায়িকার খোলামেলা পোশাক ও সিগারেট হাতে হাজির হওয়াকে নেতিবাচক বলে উল্লেখ করেন তিনি।

তার মতে, ‘একজন সেলিব্রিটির কাছ থেকে এ রকম অশোভন আচরণ কাম্য নয়, আমাদের ছেলে-মেয়েদের ওপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে।’

এ নিয়ে পক্ষ-বিপক্ষে নানান তর্ক হয়েছে। ‘বিতর্ক’ তোলা ছবি দুটি ভেরিফায়েড পেজ থেকে মুছেও দেন পরী।

সোহেল তাজ এবার তার বিরুদ্ধে ওঠা সমালোচনার জবাব দিলেন। সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টে সোমবার একগুচ্ছ ছবি শেয়ার করেন তিনি। যেখানে নারী জাগরণের অগ্রদূর বেগম রোকেয়া, কবি সুফিয়া কামাল থেকে মালালা ইউসুফজাইসহ অনেকে রয়েছেন।

সবশেষে বলেন, উনাদের ইতিবাচক কর্মের মধ্যে রেখে গেছেন নতুন প্রজন্মের জন্য অনুপ্রেরণা।

সোহেল তাজ লেখেন, ‘আমি ব্যক্তি স্বাধীনতায় বিশ্বাসী। কে কী পোশাক পড়লো বা ধূমপান করলো কী না করলো এগুলো শুধু নারী স্বাধীনতাই না, বরং ব্যক্তি স্বাধীনতার কাতারে পড়ে। আর তাই আমি মনে করি যে, একজন মানুষের (নারী বা পুরুষ) অধিকার আছে তার নিজের পছন্দ মতো তার ব্যক্তিগত জীবন পরিচালনা করার।’

ব্যক্তি স্বাধীনতা ও উচ্ছৃঙ্খল আচরণের পার্থক্য করে তিনি বলেন, ‘সমস্যা হচ্ছে, যখন আমরা উচ্ছৃঙ্খল আচরণকে নারী/ব্যক্তি স্বাধীনতার সঙ্গে মিলিয়ে ফেলি। বাংলাদেশে যখন মাদক একটি বিরাট সমস্যা যখন সোশ্যাল মিডিয়ার অ্যাডিকশনের কারণে ছেলে-মেয়েরা মানসিকভাবে আক্রান্ত হচ্ছে (ডিপ্রেশন) তখন নতুন প্রজন্মের জন্য প্রয়োজন ইতিবাচক অনুপ্রেরণা যা আমরা পাই অনুকরণীয় ব্যক্তিত্বদের জীবন থেকে— আর সেটা কখনোই সম্ভব হবে না যদি কিছু উচ্ছৃঙ্খল সেলিব্রিটিরা তাদের বেপরোয়া ব্যক্তিগত জীবনধারা তাদের সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে আমাদের নতুন প্রজন্মের ওপর চাপিয়ে দেয়।’

‘আমাদের নতুন প্রজন্মের সামনে তুলে ধরতে হবে এমন ব্যক্তিত্বদের যারা তাদের দৃঢ়চেতা মনোবল এবং আত্মবিশ্বাসকে কাজে লাগিয়ে সকল প্রতিকূলতা পার করে শুধু নারী অধিকারের লড়াই করেন নাই বরং সকল মানুষের কল্যাণে কাজ করে গেছেন— উনাদের ইতিবাচক কর্মের মধ্যে রেখে গেছেন নতুন প্রজন্মের জন্য অনুপ্রেরণা।’

Print Friendly, PDF & Email