আফগানিস্তানে অস্থিতিশীলতা নিয়ন্ত্রণে পাকিস্তানের সহযোগিতা চায় চীন

সম্প্রতি বেইজিংয়ের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই পাকিস্তানের সাথে কূটনৈতিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার ৭০ বছর পূর্তি উপলক্ষে এক ভাষণে পাকিস্তানকে আফগানিস্তানে নিরাপত্তা ঝুঁকি নিয়ন্ত্রণে সহযোগিতা বাড়ানোর জন্য আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, চীন ও পাকিস্তানকে একসাথে আঞ্চলিক শান্তি রক্ষা করতে হবে। আফগানিস্তানের সমস্যাগুলি ব্যবহারিক চ্যালেঞ্জ যা চীন এবং পাকিস্তান উভয়ই মুখোমুখি হয়। পাকিস্তানের সাথে চীনও আলোচনার মাধ্যমে রাজনৈতিক সমাধানের জন্য আফগানিস্তানের সব পক্ষের প্রতি সমর্থন অব্যাহত রাখতে এবং জাতিগত পুনর্মিলন এবং দীর্ঘস্থায়ী শান্তির দিকে পরিচালিত করতে ইচ্ছুক।

ওয়াং আরও যোগ করেন, ন্যায়সঙ্গত এবং যুক্তিসঙ্গত বৈশ্বিক শাসনের চাপ দেওয়ার জন্য পাকিস্তানের সাথে সহযোগিতা জোরদার করতে চায়। বেল্ট অ্যান্ড রোড ইনিশিয়েটিভের একটি প্রধান উপাদান চীন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডরে আফগানিস্তানের সম্পৃক্ততা বাড়িয়ে ‘ত্রিপাক্ষিক সহযোগিতার’ জন্য আরও জোর দেওয়া উচিত।

এদিকে, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান গত সপ্তাহে বলেছেন, আফগানিস্তানকে পূর্ণ গৃহযুদ্ধ থেকে বাঁচানোর প্রচেষ্টায় দেশটি তার প্রতিবেশীদের কাছে যাচ্ছে এবং শান্তি উদ্যোগের অংশ হিসেবে তারা ‘তালেবানদের সঙ্গে যোগাযোগ’ করবে।

এছাড়াও একটি বিশ্বাসযোগ্য শাসন কাঠামো চালু রয়েছে তা নিশ্চিত না করে আফগানিস্তান ছেড়ে যাওয়ার জন্য ইসলামাবাদ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সমালোচনা করেছে।

Print Friendly, PDF & Email