উইঘুর নিপীড়নে ফের চীনকে সমর্থন পাকিস্তানের!

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান চীনের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিসি) শততম বার্ষিকী উদযাপনের অংশ হিসেবে ইসলামাবাদে সফররত চীনা গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে সম্প্রতি বৈঠক করেন। বৈঠকে  জিনজিয়াং প্রদেশে চীনা সরকারের নীতিতে ফের পাকিস্তানের পূর্ণ সমর্থনের পুনরাবৃত্তি করেছেন তিনি! এছাড়াও চীনের একদলীয় নির্বাচনী ব্যবস্থা গণতন্ত্রের চেয়ে আরও ‘ভাল মডেল’ বলেও প্রশংসা করেন তিনি।

এদিকে, দীর্ঘদিন ধরেই আন্তর্জাতিক মানবাধিকার গোষ্ঠীগুলো চীনের বিরুদ্ধে জিনজিয়াং প্রদেশে গণহত্যা ও মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ জানাচ্ছে। বলা হচ্ছে, চীন সেখানকার মুসলিম জনগোষ্ঠীর ধর্মীয় স্বাধীনতা, মূলবোধ হরণ করছে। নানা ধরনের নির্যাতন চালিয়ে জাতি হিসেবে তাদের নিশ্চিহ্ন করে দিচ্ছে।

অন্যদিকে, পাস্তিানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান নিয়মিত ইসলাম ভীতির বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক ব্যবস্থা গ্রহণের আহ্বান জানালেও চীনের ব্যাপারে তিনি উল্টো কৌশল গ্রহণ করেছেন। তিনি বলেন, ‘চীনের সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক খুব দৃঢ়। যেহেতু বিশ্বাসের ওপর ভিত্তি করে আমাদের সম্পর্ক, তাই জিনজিয়াংয়ে কর্মসূচি সম্পর্কে তারা যা বলে, আমরা তা গ্রহণ করি।’ তিনি একদলীয় শাসন ব্যবস্থারও প্রশংসা করে বলেন, ‘সিপিসি একটি অনন্য মডেল। তারা আসলে সমস্ত পশ্চিমা গণতন্ত্রকে পরাজিত করেছে।’

প্রসঙ্গত, চীন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডোর (সিপিইসি) প্রকল্পের মাধ্যমে দেশটিতে ৬০ বিলিয়ন ডলারেরও বেশি বিনিয়োগ করা উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় প্রতিবেশী চীনের সাথে পাকিস্তানের দীর্ঘদিনের কৌশলগত সম্পর্ক রয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email