লক্ষ্মীপুরে দেড় মাসের মাথায় শ্বশুর বাড়ী থেকে জামাতার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

রায়পুর (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি :

দেড় মাস আগে বিয়ে করেন পান চাষি মোঃ জাফর (৩১)। কিন্তু বাবার মৃত্যুর চল্লিশ দিন পার হলে বউ ঘরে তুলবেন তার মা। কিন্তু জাফরের মন মানছিলো না। অবশেষে মায়ের কাছ থেকে ৫’শ টাকা নিয়ে বউ আনতে শশুর বাড়ী গেলেন জাফর। কিন্ত ফিরলেন লাশ হয়ে।

স্ত্রী শিমার দাবি, স্বামী জাফরের সাথে শশুর বাড়ী না যাওয়ায় ক্ষুদ্ধ হয়ে আমাদের বাড়ীতেই পরিত্যাক্ত একটি ঘরে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন জাফর।

ঘটনাটি ঘটেছে রোববার (৪ জুলাই) সকালে লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে চরআবাবিল ইউপির আসর উদ্দিন মাঝি বাড়ীতে। মৃত জাফর একই গ্রামের মৃত আবুল কাশেমের বড় ছেলে।

দুপুরে জাফরের মৃত দেহ ময়না তদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এঘটনায় থানায় ইউডি মামলা করেছেন তার মা রাহিমা বেগম।

জানা যায়, প্রায় দেড় মাস আগে-চরআবাবিল ইউপির ৪ নং ওয়ার্ড লালমিয়া সিরাজ হাওলাদার বাড়ির নুরনবির মেয়ে শিমা আক্তার (১৯) কে বিয়ে করেন জাফর। প্রায় ১২ দিন আগে শিমা তার বাবার বাড়িতে বেড়াতে যান। এদিকে, গত এক মাস আগে জাফরের বাবা মারা যান। ৪০ দিন পার হওয়ার পর বউ ঘরে তুলবেন বলে জাফরকে তার মা বলেছিলেন। কিন্তু মায়ের নির্দেশনা না মেনে জাফর তার বউকে আনতে শনিবার সন্ধায় শাশুর বাড়ী যায়। জাফরের মায়ের অনুমতি ছাড়া শাশুরি তার মেয়েকে দিবে না বললে জাফর রাগ করে ঘর থেকে বের হয়ে যায়। রোববার সকালে স্থানীয় লোকদের মাধ্যমে জানতে পারেন জাফর গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।

জাফরের স্ত্রী শিমা আক্তার বলেন, জাফর সন্ধার তাদের বাড়ীতে এসে বাড়ী যাওয়ার জন্য চাপসৃষ্টি করেন। রাতের খাবারও খেয়েছেন। তাকে বলেছি বিশ্রাম করেন, সকালে শশুর বাড়ীতে যাবো। একথা বলায় জেদ করে ঘর থেকে চলে যান তিনি।

রায়পুরের হায়দারগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ হাসান জাহাঙ্গীর আলম বলেন, নিহত জাফরের লাশ উদ্ধার করে সদর হাসপাতাল পাঠানো হয়েছে। মৃতদেহে আঘাতের কোন চিহ্ন পাওয়া যায়নি। এঘটনায় ইউডি মামলা হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email