জমে উঠেছে লক্ষ্মীপুর উপ-নির্বাচন

রায়পুর (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি :
৭ বছরের সাজাপ্রাপ্ত কুয়েতের কারাগারে বন্দি শহিদ ইসলাম পাপুলের আসনে-লক্ষ্মীপুর-২ (রায়পুর ও সদরের একাংশ) উপ-নির্বাচনে নৌকা ও লাঙ্গলের প্রতীকের লড়াই হবে। আওয়ামী লীগের প্রার্থী জেলা আ’লীগের সাধারন সম্পাদক এডভোকেট নুর উদ্দিন চৌধুরি নয়ন ও জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা শেখ ফায়েজ উল্যাহ শিপন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।
গত ৭ জুন থেকে নির্বাচন কমিশনের ঘোষনার পর -এডভোকেট নয়ন পৌরশহর সহ পৌরসভাসহ ১৯টি ইউনিয়নে নেতা-কর্মিদের নিয়ে ভোট দিতে ভোটারদের উদ্ভুদ্ধ করে মিছিল, সভা-সমাবেশ করছেন। জাপা নেতা শিপন দলের নেতা-কর্মীদের নিয়ে গ্রামে-গ্রামে তার পক্ষে ভোট ভিক্ষা চাইছেন।
এদিকে, রায়পুর পৌরসভার কাউন্সিলর ও উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি আনোয়ার হোসেন বাহার  ও সাধারণ সম্পাদক আসাদুল হক চৌধুরি দলের প্রার্থী শেখ ফায়েজ উল্লাহ শিপনের লাঙ্গলের পক্ষে প্রচারণা না করায় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ উঠেছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জাপার কেন্দ্রীয় কমিটির নেতা ও প্রার্থী ফায়েজ উল্রাহ শিপন। তবে- আনোয়ার হোসেন বাহার বলেন, দলের স্থানীয় কোন নেতার সাথে শিপনের যোগাযোগ নেই। নির্বাচন করার প্রথম দিকে দলের ৭৩ নেতা-কর্মীকে নিয়ে সভা করেছিলাম। সেখানে ও নির্বাচনের সময় সিপন কেন্দ্র খরচ বহন না করার কথা বলায় কেও এখন এগিয়ে আসছে না। সে নির্বাচন নয়-দলকে ধ্বংস করার জন্য আসছে।
রায়পুরের পৌরসভাসহ ১০টি ইউনিয়ন এবং সদর উপজেলার নয়টি ইউনিয়ে আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টির  প্রার্থীর প্রচারণা জমে উঠেছে। প্রতিশ্রুতিতেও কেউ পিছিয়ে নেই।
জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক এডভোকেট নুর উদ্দিন চৌধুরি নয়ন সদর উপজেলার চররুহিতা গ্রামের বাসিন্দা ও জেলা শহরে পরিবার নিয়ে বসবাস। অপরদিকে, জাতীয় পার্টির প্রার্থী ও কেন্দ্রীয় নেতা শেখ ফায়েজ উল্লাহ শিপন রায়পুর উপজেলার সোনাপুর ইউনিয়নের বাসাবাসি বাজার এলাকার বাসিন্দা।
আওয়ামী লীগের প্রার্থী এডভোকেট নয়ন কিছুটা সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছেন বলে মাঠপর্যায়ে ঘুরে নানা শ্রেণি–পেশার ভোটারের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে। স্থানীয় লোকজন জানান, অনেক আসনে মহাজোট হলেও এ আসনে নৌকা আর লাঙ্গল এক হলো না। তাই তারা পৃথক প্রার্থী হয়।
জাতীয় পার্টির প্রার্থী শেখ ফায়েজ উল্লাহ শিপন বলেন, এলাকায় জাতীয় পার্টির অবস্থান আগের চেয়ে এবার আরও ভালো। লাঙ্গল প্রতীকের পক্ষে জোয়ার উঠেছে। নির্বাচিত হলে তিনি এলাকার উন্নয়নে কাজ করবেন। মাদকমুক্ত সমাজ গঠনে সামাজিক আন্দোলন করে গড়ে তুলবেন।
লক্ষ্মীপুর-২ এ সংসদীয় আসনটি, সদর উপজেলার ৯টি ইউনিয়ন, রায়পুর পৌরসভা ও রায়পুর উপজেলার ১০টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত। এই আসনে মোট ১৩৬টি ভোট কেন্দ্রের মাধ্যমে চার লক্ষ দুই হাজার নয়শত তেষট্টি জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।
উল্লেখ্য- গত ৪ মার্চ নির্বাচন কমিশন ওই আসনে ১১ এপ্রিল উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে।কিন্তু করোনা পরিস্থিতির কারণে তা পিছিয়ে আগামী ২১ জুন নির্ধারণ করা হয়। ওই তফসিল স্থগিত চেয়ে হাইকোর্টে রিট করেন বিএনপি নেতা ও সাবেক সাংসদ আবুল খায়ের ভূঁইয়া। তার দাবি, ২০১৮ সালের নির্বাচনে শহিদ ইসলাম পাপুলের হলফনামায় তথ্য গোপনের অভিযোগে নিয়ে ইলেকশন ট্রাইব্যুনালে মামলা করেছিলেন। সোমবার (১৪ জুন) ওই রিট খারিজ করেন হাইকোর্ট। অন্যদিকে-গত ৪ মার্চ পাপুলের এমপি পদ রক্ষায় তার বোন নুরুন্নাহার বেগম ও রায়পুরের স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা সালাহ উদ্দিন লিটন হাইকোর্টে রিট করেন। আসনটি শূন্য ঘোষণাকে অবৈধ এবং পাপুলের এমপি পদ বহাল রাখতে রিট করা হয়। গত ৭ জুন আদালত রিটটি খারিজ করে দিয়েছেন ৷
Print Friendly, PDF & Email