তাসবীরুল হক অনুর মানবিক উদ্যোগ : প্রশংসায় ভাসছে নগর উত্তর যুবলীগ

নিজস্ব প্রতিবেদক :

“আল্লাহ যুবলীগের ভাইগোরে নেক হায়াত দান করক,লকডাউনে যন ভাবতেছিলাম কী খামু,বো পোলাপানরে কেমনে খাওয়ামু,তন এ আল্লার তরফেরতন যুবলীগের ভাইরা আঙ্গো খাওনের জোগার কইচ্ছে। “কথাগুলো বলতে দেখা যায় রাজধানীর ঝিগাতলার ৪/এ নং রোডে (প্রকাশ ১৩/এ) আয়োজিত বিনামূল্যে আহার প্রদান কর্মসূচি থেকে খাবার প্যাকেট গ্রহণকারী এক বৃদ্ধাকে। উল্লেখ্য,অনাহারীর মুখে আহার তুলে দেয়ার লক্ষ্যে রাজধানীর ঝিগাতলার ঐতিহ্যবাহী ১৩/এ তে স্বাস্থ্য বিধি মেনে বিনামূল্যে আহার প্রদান কর্মসূচির আয়োজন করেন,বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ ঢাকা মহানগর উত্তরের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তাসবীরুল হক অনু। ১০ম রমজানে আরম্ভ হওয়া এ কর্মসূচি চলবে শেষ রমজান পর্যন্ত। লকডাউন না তুললে চলবে রমজানের পরেও।

যুবলীগ নেতা অনুর এমন মানবিক উদ্যোগে প্রশংসায় ভাসছে ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগ। উপরোল্লিখিত বৃদ্ধার ন্যায় যুবলীগ নিয়ে ইতিবাচক মন্তব্য করতে দেখা যায় অন্যান্য খাবার গ্রহণকারীদেরও। জনৈক রিক্সাচালক বলেন,”লকডাউনের হর ধরি কোন ক্ষ্যাপ মাইরতে হারিনা,মাঝে মাঝে রিক্সা বাইর করলেও ঠিকমত ক্ষ্যাপ হাইনা,তাই ঘরের লাই বাজার-সদাই কইরতাম হারিনা,টাকা নাই বুইঝতো হারি দোয়ানদারও বাঁই দেয়না,যুবলীগের ভাইগো খাবার বিতরণের হর ধরি অন অন্তত খানার চিন্তাটা দূর অইছে”। জনৈক মহিলা বলেন,”বাসা বাড়িতে কাম কইত্তাম,লকডাউন দেওনের হর ধরি বাসা বাড়িত ডুকতাম হারিনা,হোলাহাইনের খাওনের জোগারও কইত্তাম হারিনা হেয়াল্লাই। এই অভাবের টাইমে শেখ হাসিনার যুবলীগ আঙ্গোরে বিনা হইসায় খাবাইতেছে,আল্লাহ শেখ হাসিনার হায়াত বাড়াই দেক,যুবলীগের ভাইগোও হায়াত বাড়াই দেক।”

এ প্রতিবেদকের আলাপকালে তাসবীরুল হক অনু বলেন,আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনার অনুপ্রেরণায় ও মানবিকবোধ থেকে গত লকডাউনেও অনাহারীর মুখে আহার তুলে দেয়ার জন্য বিনামূল্যে আহার প্রদান কর্মসূচির আয়োজন করি। ঈদের দিন অসহায় মানুষদের জন্য আনন্দ আয়োজন করি। তাদের সাথে একসাথে আনন্দ উদযাপন করি যেন তারা কোন প্রকার হীনমন্যতায় না ভূগে। তাসবীরুল হক অনু আরও বলেন,অসহায় মানুষদের শুধু দান করলেই হবেনা,তাদের কাছে টেনে নিতে হবে,তাদের সাথে মিশতে হবে,যেন তারা মানসিক প্রশান্তিও পায়। তিনি আরও বলেন,জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আমাদেরকে ক্ষুদা ও দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন দেখিয়ে গেছেন,আজ সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নে সংগ্রাম করে যাচ্ছেন তাঁর ই কন্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনা। আমার মানবিক কাজের প্রেরণা দেশরত্ন শেখ হাসিনা,যুবলীগের মাননীয় চেয়ারম্যান শেখ ফজলে সামস পরস ভাই এবং সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিল ভাই। আমি আমার সাধ্যানুযায়ী অসহায় মানুষের আহারের ব্যাবস্থা করছি। সবাই সবার জায়গা অসহায় মানুষদের খাবারের ব্যাবস্থা করলে অসহায় মানুষজন লকডাউন মানতে আন্তরিক হবে,যা করোনা সংক্রমণ রোধে সহায়ক হবে।

Print Friendly, PDF & Email