লক্ষ্মীপুরে বাড়িতে ঢুকতেই ভাতিজাকে কুপিয়েছে চাচা!

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

লক্ষ্মীপুরে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে একা পেয়ে মো. সাজেদ নামে এক তরুণের মাথায় কুপিয়ে জখম করা হয়েছে। সোমবার (১৯ এপ্রিল) যোহরের নামাজ শেষে বাড়িতে ঢুকতেই তার আপন দুই চাচা মাহমুদ বিন সুলতান ও জিয়া উদ্দিন মুজাহিদ ঘটনাটি ঘটিয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে। সদর উপজেলার চররুহিতা ইউনিয়নের চররুহিতা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

এদিকে সাজেদকে বাঁচাতে গিয়ে তার বড় ভাই মো. শাকেরও তাদের পিটুনির শিকার হয়। আশঙ্কাজনক অবস্থায় সাজেদকে প্রথমে সদর হাসপাতাল ও পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল করেজে পাঠানো হয়েছে।

অন্যদিকে সাজেদের চাচা মাহমুদ মাথায় জখম নিয়ে একা একা সদর হাসপাতালে উপস্থিত হন। সাজেদ আগে তাকে দা দিয়ে কুপিয়েছে অভিযোগ করেন তিনি। তবে হাসপাতালে উপস্থিত মানুষজন ধারণা করছেন, ‘ব্লেড’ দিয়ে তার মাথার তালুতে লম্বালম্বিভাবে কাটা হয়েছে।

আহত সাজেদ ও শাকের চররুহিতা গ্রামের সুলতান আমেদের বাড়ির সাংবাদিক হাবিব আহমেদের ছেলে। বিদেশ যাওয়ার জন্য সাজেদ কারিগরী প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে গাড়ি চালকের প্রশিক্ষণ নিয়েছে। অভিযুক্ত মাহমুদ ও মুজাহিদ মৃত সুলতান আহমেদের ছেলে। মুজাহিদ নিজেকে সদর উপজেলা যুবলীগের সদস্য বলে দাবি করছেন।

ভূক্তভোগী পরিবার ও স্থানীয় সূত্র জানায়, হাবিবের সঙ্গে তার দুই ভাই মাহমুদ ও মুজাহিদের সঙ্গে দীর্ঘদিন জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছে। এ ঘটনায় প্রায়ই মাহমুদ ও মুজাহিদ বাড়িতে হাবিবের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে বিরোধে জড়াতো। সম্প্রতি তারা হাবিবের নামে থানায় একটি অভিযোগও দায়ের করে। এরমধ্যেই সোমবার যোহর নামাজ শেষে হাবিবের ছেলে সাজেদ বাড়ি ঢুকছিলো। এসময় মাহমুদ ও মুজাহিদ তাকে ধরে ফেলে।

একপর্যায়ে মাহমুদ ধারালো দামা দিয়ে সাজেদের মাথায় দুটি আঘাত করে। চিৎকার শুনে ভাইকে বাঁচাতে এগিয়ে এলে শাকেরকেও তারা পিটিয়ে আহত করে। পরে স্থানীয়রা আহত অবস্থায় তাদেরকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

আহত মো. শাকের বলেন, মাহমুদকে কোন আঘাত করা হয়নি। আমার ভাইকে কুপিয়ে পরে নাটক সাজানোর জন্য নিজেই নিজের মাথা কেটে হাসপাতাল এসেছে। আমাদের ওয়ারিশি জমি তারা জোরপূর্বক ভোগ করার পাঁয়তারা করছে। ওয়ারিশি সনদ জালিয়াতি করে তারা আমার দাদার নামে ব্যাংকে থাকা টাকা উঠিয়ে নিয়েছে।

হাসপাতালে মাহমুদ বিন সুলতান বলেন, সাজেদ আগে আমাকে কুপিয়েছে। পরে আমি তাকে কুপিয়েছি। তারা আমার টাকা দিচ্ছে না। তবে কত টাকা পাবেন, তা তিনি জানাতে পারেননি।

সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক আসিফ মাহমুদ বলেন, সাজেদের মাথার খুলি পর্যন্ত কেটে গেছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজে পাঠানো হয়েছে। শাকেরকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

লক্ষ্মীপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জসিম উদ্দিন বলেন, খবর পেয়ে হাসপাতালে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email