কবুতরের মাংস রান্নার রেসিপি

কবুতর ভুনার স্বাদ যারা পেয়েছেন তারা নিশ্চয়ই আবার তা খেতে চাইবেন। রেসিপিটা তো জানাবোই তার আগে কবুতরের মাংসের পুষ্টিগুণ সম্পর্কে একটু ধারণা দিয়ে রাখি। কবুতরের মাংস অত্যন্ত সুস্বাদু এবং বিশেষজ্ঞরা বলেন, কবুতরের মাংসে সাধারণ অন্যান্য পাখির মাংসের চাইতে প্রোটিনের পরিমান বেশি।

ফলে শরীরে আমিষের ঘাটতি পূরণের জন্য কবুতরের মাংস খুব কার্যকর। শরীরের বাড়তি আমিষের যোগান দেওয়া কবুতরের এই মজাদার রান্নার রেসিপি দিয়েছেন রন্ধনশিল্পী সানজিদা ইসলাম

পুষ্টিকর কবুতরের মাংসপ্রথমে কবুতরের পালক তুলে পরিষ্কার করে নিন। অথবা কবুতরের চামড়া ছুলে নিন। ছোট টুকরা করে কেটে ভালো করে ধুয়ে নিন।

উপকরণ :কবুতর দুইটা, সরিষার তেল তিন টেবিল চামচ পেঁয়াজ কুঁচি আধা কাপ, আদা-রসুন বাটা এক টেবিল চামচ, হলুদ গুঁড়া এক চা-চামচ, মরিচ গুঁড়া এক দুই চা-চামচ, কাঁচামরিচ পাঁচ/ ছয়টি অথবা ঝাল পছন্দ অনুযায়ী, ধনে গুঁড়া এক চা চামচ, গোলমরিচ চার/পাঁচটি, ভাজা জিরা গুঁড়া আধা চা চামচ, তেজপাতা একটি, এলাচ তিন/চারটি , লবঙ্গ চারটি, রসুনের আস্ত কোয়া পাঁচ/ ছয়টি দারুচিনি একটি, পছন্দ অনুযায়ী আলু এবং লবন স্বাদমতো।

পুষ্টিকর কবুতরের মাংস রান্নার প্রণালী :প্যানে তেল গরম করে পেঁয়াজ কুঁচি দিন পেঁয়াজ বাদামী কালার হয়ে এলে একে একে সব মসল্লা এলাচ, তেজপাতা ও দারুচিনি দিয়ে একটু ভেজে নিন। এবার এতে দিন আদা-রসুন বাটা, হলুদ গুঁড়া, মরিচ গুঁড়া, ধনে গুঁড়া ও লবণ দিয়ে দিন।

পুষ্টিকর কবুতরের মাংসএবার অল্প অল্প পানি দিয়ে ৩/৪ মিনিট মসলা কষিয়ে নিন। মসলা কষানো হলে কবুতরের মাংস, আলু দিয়ে নাড়াচাড়া করে মাংস কষিয়ে নিন। মাংস সেদ্ধ হওয়ার জন্য আরেকটু পানি দিয়ে ঢেকে রান্না করুন। এরপর কয়েকটি কাঁচামরিচ, ভাজা জিরা গুঁড়া দিয়ে নামিয়ে রাখুন। ফাইনালি রেডি হয়ে গেল সুস্বাদু কবুতরের মাংস ভুনা।

মজাদার কবুতরের মাংস গরম গরম ভাতের সাথে পরিবেশন করুন। খেতে দারুন সুস্বাদু লাগবে। আর পেয়ে যাবেন শরীরের বাড়তি আমিষ।

Print Friendly, PDF & Email