ঢাকাMonday , 19 September 2022
  1. অন্যান্য
  2. অপরাধ
  3. অর্থ ও বাণিজ্য
  4. আইন-বিচার
  5. আন্তর্জাতিক
  6. আবহাওয়া ও কৃষি
  7. খেলাধুলা
  8. গনমাধ্যাম
  9. চাকরি
  10. জাতীয়
  11. ধর্ম
  12. নির্বাচন
  13. প্রবাসের খবর
  14. প্রযুক্তি সংবাদ
  15. ফিচার

রানির অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া আজ, বিশ্বনেতাদের অন্যতম জমায়েত

Link Copied!

বিশ্বের ইতিহাসের এক বর্ণময় অধ্যায়ের সমাপ্তি আজ। ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের সিংহাসনে সবচেয়ে দীর্ঘ সময় ধরে আসীন ও বিশ্বের প্রবীণতম রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠিত হবে আজ সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর)। ব্রিটেনকে দীর্ঘ ৭০ বছর ধরে শাসন করে আসা এই রানিকে তাই রাজকীয়ভাবেই জানানো হবে বিদায়।
এ আয়োজনে যোগ দিতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনসহ বিশ্বের প্রায় ৫০০ রাষ্ট্রপ্রধান ও বিশিষ্ট ব্যক্তিরা লন্ডনে অবস্থান করছে। আর এটি হতে যাচ্ছে কয়েক যুগের মধ্যে বিশ্বনেতাদের অন্যতম জমায়েত। এদিকে বিশ্বনেতাদের সাথে রানির প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উপস্থিত হয়েছেন ইউরোপের বিভিন্ন রাজপরিবারের প্রতিনিধিরাও।

গত ৮ সেপ্টেম্বর স্কটল্যান্ডের বালমোরাল প্রাসাদে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন ব্রিটেনের রাজপরিবারের প্রধান রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ। ৯৬ বছর বয়স্ক রানি বার্ধক্যজনিত শারীরিক জটিলতায় ভুগছিলেন।
রাজপরিবারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, ১৯ সেপ্টেম্বর রাজধানী লন্ডনের ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবে এলাকার সেইন্ট পল গির্জায় সমাহিত করা হবে রানির মরদেহ। সমাহিত করার আগে সর্বসাধারণের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য ব্রিটেনের পার্লামেন্ট ভবনের ওয়েস্ট মিনস্টার হলে তার মরদেহ চারদিনের জন্য রাখা হয়েছে।

সোমবার পর্যন্ত সেখানে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় শায়িত থাকবেন রানি এলিজাবেথ। এর মধ্যেই রানির মৃত্যুতে ব্রিটেনে ১০ দিনের রাষ্ট্রীয় শোক পালন সম্পন্ন হবে এবং প্রয়াত এই রানির শেষকৃত্য শুরু হবে।
ব্রিটিশ পার্লামেন্টের ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবেতে রাখা রয়েছে রানির কফিন। সোমবার সেখান থেকেই বাকিংহ্যাম প্যালেস হয়ে রাজকীয় নিয়মে রানির শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে। সকল রাজকীয় প্রথা মেনে সমাধিস্ত করা হবে রানিকে। স্বামী প্রিন্স ফিলিপের পাশের কবরেই শায়িত হবেন রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ।

আরও পড়ুন- এস

এদিকে কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো, অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী অ্যান্থনি এলবানেজ, নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আরডার্নসহ এই অনুষ্ঠানে যোগ দিচ্ছেন কমনওয়েলথভুক্ত দেশের নেতারা। এছাড়া ভারতের প্রতিনিধিত্ব করবেন দেশটির রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদি মুর্মু।

অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় বিশ্বনেতাদের মধ্যে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ, আইরিশ নেতা মিচেল মার্টিন, জার্মানির প্রেসিডেন্ট ফ্রাঙ্ক-ওয়ালটার স্টেনমেয়ার ও ইতালির প্রেসিডেন্ট সার্জিও মাতারেলা যোগ দেবেন বলে আশা করা যাচ্ছে। এ ছাড়া ইউরোপের বিভিন্ন দেশের রাজ পরিবারের সদস্যরাও এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন।

তবে সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের মতো কয়েকজন আমন্ত্রিত অতিথিকে ঘিরে তৈরি হয়েছে বিতর্ক। মোহাম্মদ বিন সালমানের বিরুদ্ধে ইস্তাম্বুলের সৌদি দূতাবাসে সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে হত্যার হুকুম দেয়ার অভিযোগ রয়েছে, যা মোহাম্মদ বিন সালমান ও তার সরকার অস্বীকার করে আসছে। এ বিষয়ে খাশোগির বাগদত্তা হ্যাটিস গ্যানজিজের মতে রানির স্মরণ অনুষ্ঠানে যোগ দেয়ার জন্য সৌদি যুবরাজকে আমন্ত্রণ জানানো ঠিক হয়নি। সমালোচিত আরেকজন অতিথি হলেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং যার নেতৃত্বাধীন সরকারে বিরুদ্ধে মানবতাবিরোধী কর্মকাণ্ডের অভিযোগ রয়েছে। তবে শি অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় যোগ দিচ্ছেন না, তার পরিবর্তে যোগ দিচ্ছেন দেশটির ভাইস প্রেসিডেন্ট ওয়াং কিশান।

অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার এই অনুষ্ঠানে রাশিয়া, বেলারুশ, মিয়ানমার, সিরিয়া, ভেনিজুয়েলা ও আফগানিস্তানের প্রতিনিধিদের আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। অন্য দিকে ইরান, উত্তর কোরিয়া ও নিকারাগুয়ার রাষ্ট্রপ্রধানদের আমন্ত্রণ না জানিয়ে রাষ্ট্রদূতদের পাঠাতে বলা হয়েছে। রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথের শেষকৃত্যানুষ্ঠানের সব আয়োজন সরাসরি সম্প্রচারের ব্যবস্থা করেছে ব্রিটেন সরকার। অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া পর্বের নানা আনুষ্ঠানিকতা দেখাতে দেশটির বিভিন্ন পার্ক, স্কয়ার এবং গির্জায় বড় পর্দার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। এ ছাড়াও ব্রিটেনজুড়ে ১২৫টি সিনেমা হলে বিনামূল্যে সবচেয়ে বেশিদিন ব্রিটিশ সাম্রাজ্য শাসন করা রানীর শেষকৃত্য দেখানো হবে।

অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া এবং লন্ডনে কফিন নিয়ে শোভাযাত্রা পর্ব বিবিসি, আইটিভি ও স্কাইটিভিতেও সরাসরি সম্প্রচার করা হবে বলে বিবৃতিতে জানিয়েছে ব্রিটেন সরকারের সংস্কৃতি বিভাগ। ব্রিটেনের সিনেমা হল অ্যাসোসিয়েশন জানিয়েছে, যেসব হলে রানীর শেষকৃত্য দেখানো হবে, এর মধ্যেই সেগুলোর অনেকগুলোর আসন বুক হয়ে গেছে।
ধারণা করা হচ্ছে, যত লোক বিভিন্ন মাধ্যম ব্যবহার করে এই শেষকৃত্য দেখবে, তা ১৯৯৭ সালে রাজবধূ ডায়ানার অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া, ২০১২ সালে লন্ডনের অলিম্পিক এবং রাজ পরিবারের সদস্যদের বিয়েসহ সাম্প্রতিক সময়ের বিভিন্ন অনুষ্ঠানকেই ছাড়িয়ে যাবে।

এদিকে শেষকৃত্যে বিশ্ব নেতাদের আগমন ঘিরে স্মরণকালের সবচেয়ে কঠোর নিরাপত্তার আয়োজন করছে লন্ডন পুলিশ। শেষকৃত্যের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথির সংখ্যা দুই হাজারেরও বেশি। তাদের মধ্যে আছেন দেশ-বিদেশের রাষ্ট্রপ্রধান-সহ ৫০০ বিশেষ অতিথি। এই বিশাল আয়োজন সামাল দেওয়ার জন্য চার হাজার স্বেচ্ছাসেবক নিয়োগ করা হয়েছে। সঙ্গে থাকবেন রাজপরিবারের নিজস্ব কর্মীরাও। রানির শেষকৃত্যের অনুষ্ঠান সরাসরি টেলিভিশনেও সম্প্রচার করা হবে।

মাত্র ২৫ বছর বয়সে ব্রিটিশ রাজত্বের দায়িত্ব নিয়ে টানা ৭০ বছরের শাসনে সারা দুনিয়ার ইতিহাসের সাক্ষী তিনি। রানির জীবদ্দশাতেই রানিকে নিয়ে তৈরি হয়েছে অনেক চলচ্চিত্র, তথ্যচিত্র, টিভি ও ওয়েব সিরিজ। রানির মৃত্যুতে গোটা দেশ শোকস্তব্ধ। ব্রিটেনজুড়ে ১০ দিনের রাষ্ট্রীয় শোক পালন করা হচ্ছে। আজ সোমবারে দেশটির সরকারি ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।

শীর্ষসংবাদ/নয়ন

biggapon বিজ্ঞাপন

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।
ঢাকা অফিসঃ ১৬৭/১২ টয়েনবি সার্কুলার রোড, মতিঝিল ঢাকা- ১০০০ আঞ্চলিক অফিস : উত্তর তেমুহনী সদর, লক্ষ্মীপুর ৩৭০০