ঢাকাTuesday , 23 August 2022
  1. অন্যান্য
  2. অপরাধ
  3. অর্থনীতি
  4. আইন-বিচার
  5. আন্তর্জাতিক
  6. আবহাওয়া ও কৃষি
  7. খেলাধুলা
  8. গনমাধ্যাম
  9. চাকরি
  10. জাতীয়
  11. ধর্ম
  12. নির্বাচন
  13. প্রবাসের খবর
  14. প্রযুক্তি সংবাদ
  15. ফিচার

রাজসিক বিদায়েও এসপির জন্য কাঁদলেন সহকর্মী

Link Copied!

লক্ষ্মীপুর জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) ড. এএইচএম কামরুজ্জামানকে ফুল দিয়ে সজ্জিত গাড়ি ও ফুলের দঁড়ি দিয়ে গাড়ি টেনে রাজসিক বিদায় জানানো হয়েছে। মঙ্গলবার (২৩ আগস্ট) দুপুরে অতিরিক্ত ডিআইজ পদে সদ্য পদোন্নতি জনিত কারণে কামরুজ্জামান জেলা পুলিশের বিভিন্ন বিভাগের কর্মকর্তাদের ভালোবাসায় সিক্ত হন।

এদিকে এসপির রাজসিক বিদায়েও কাঁদলেন সহকর্মী অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এএসপি) পলাশ কান্তি নাথ। দক্ষতার সহিত সহকর্মীদের নিয়ে একাগ্রচিত্তে জেলাবাসীর জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিতে কাজ করে সকল শ্রেণি-পেশার মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছেন কামরুজ্জামান।

অন্যদিকে এভাবে রাজসিক বিদায় এরআগে অন্য কোন এসপিকে দেওয়ার নজির নেই। সচেতন মহলের ভাষ্যমতে, এসপি কামরুজ্জামান একজন চৌকস কর্মকর্তা ছিলেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও পোষ্ট দেওয়া কোথাও কোন অন্যায়ের তথ্য পেলে তাৎক্ষণিক তদন্তের মাধ্যমে ব্যবস্থা নিয়েছেন। করোনাকালীন বিভিন্ন জনের দেওয়া তথ্যে মানুষের বাড়িতে গোপনে খাবার পৌঁছে দিয়েছেন। দায়িত্বপালনকালে তিনি বিভিন্ন মামলার আসামি গ্রেপ্তার ও রহস্য উদঘাটন দ্রুত সময়ের মধ্যে সম্পন্ন করার কৃতিত্ব স্থাপন করেছেন।

জেলা পুলিশ জানায়, কামরুজ্জামান কুষ্টিয়া জেলার বাসিন্দা। প্রায় ৩ বছর ১ মাস তিনি লক্ষ্মীপুর জেলা পুলিশ সুপারের দায়িত্ব পালন করেছেন। সম্প্রতি তিনি বাংলাদেশ পুলিশের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ মহাপরিদর্শক (অতিরিক্ত ডিআইজি) পদে পদোন্নতি পান। তিনি ঢাকা মেট্টো পলিটন পুলিশের যুগ্ম-কমিশনার হিসেবে যোগদানের কথা রয়েছে। সেই সূত্রে তিনি নতুন জেলা পুলিশ সুপার মাহফুজ্জামান আশরাফকে দায়িত্ব বুঝিয়ে বিদায় নেন।

অতিরিক্ত জেলা পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অর্থ) পলাশ কান্তি নাথ বলেন, দীর্ঘদিন কামরুজ্জামান স্যারের সাথে কাজ করেছি। বিদায় দিতে ইচ্ছে হচ্ছিল না। অজান্তেই চোখ দিয়ে পানি ঝরেছে। দায়িত্বকালে তাঁর দিকনির্দেশনাগুলো সফলতা এনে দিয়েছে। এ জেলার আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় তাঁর কৃতিত্ব পাহাড়সম।

বিদায় বেলায় সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিমকালে ড. এএইচএম কামরুজ্জামান বলেন, পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজির আহমেদ ও সহধর্মিনী জীশান মীর্জা স্যার আমার মাধ্যমে সদর উপজেলার সুতার গোপতা এলাকা নদী ভাঙা মানুষের জন্য গণকবর নির্মাণ করেছেন। এটি আমার সারাজীবনের অনন্য স্মৃতি। লক্ষ্মীপুরের মানুষকে ভালোবেসে ফেলেছি। তাদেরকে কখনোই ভুলবো না।

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।
ঢাকা অফিসঃ ১৬৭/১২ টয়েনবি সার্কুলার রোড, মতিঝিল ঢাকা- ১০০০ আঞ্চলিক অফিস : উত্তর তেমুহনী সদর, লক্ষ্মীপুর ৩৭০০