ঝুঁকি এড়িয়ে চলেও ৬৫ গণমাধ্যমকর্মী খুন

Print Friendly
ঝুঁকি এড়িয়ে চলেও ৬৫ গণমাধ্যমকর্মী খুন

ঢাকা: বিশ্বের ঝুঁকিপূর্ণ পেশাগুলোর মধ্যে সাংবাদিকতা অন্যতম। মহান এই পেশার মানুষগুলোকে বরাবরই ক্ষমতাসীন ও সন্ত্রাসীদের বিরাগভোজনের শিকার হতে হয়। ২০১৭ সালে বিশ্বজুড়ে ৬৫ জন গণমাধ্যমকর্মী নিহত হয়েছেন। গত ১৪ বছরের মধ্যে এই সংখ্যাটা কম।

নিহতের সংখ্যা কম হওয়ার পেছনের কারণ উদঘটন করেছে বিশ্ব সাংবাদিক সংস্থা রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডার্সের (আরএসএফ)। সংস্থাটি মঙ্গলবার (২৬) বার্ষিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। সেখানে তারা বলেছে, এ বছর ঝুঁকিপূর্ণ স্থানগুলো এড়িয়ে চলেছেন সাংবাদিকরা, অর্থাৎ তারা এমন সব স্থানে রিপোর্টিং এ যাননি, যেখানে প্রাণ হারানোর ভয় রয়েছে।

আরএসএফ বলছে, এ বছর সাংবাদিকদের জন্য সবচেয়ে বিপজ্জনক দেশ ছিল সিরিয়া। যেখানে ১২ জন সাংবাদিক নিহত হয়েছে। মেস্কিকোতে হত্যা করা হয়েছে ১১ জনকে। এর মধ্যে মেক্সিকোর প্রখ্যাত সাংবাদিক হাভিয়ের ভাল্দেজ, যিনি সেখানকার মাদক চোরাচোলান নিয়ে প্রতিবেদন করতে গিয়ে আততায়ীদের গুলিতে প্রাণ হারান। তিনি সংবাদ সংস্থা এএফপি-র হয়ে কাজ করছিলেন।

সাংবাদিকদের জন্য এশিয়ায় এ বছর সবচেয়ে বিপজ্জনক দেশ ছিল ফিলিপাইন্স। গত বছর সেখানে পাঁচজন সাংবাদিককে গুলি করা হয়। যাদের মধ্যে চারজন এ বছর মারা গেছেন। ৬৫ জন গণমাধ্যমকর্মীর মধ্যে ৩৯ জন দায়িত্বপালন করার সময় প্রাণ হারান। এদের কেউ মারা গেছেন গুলিতে বা আত্মঘাতী হামলায়।

প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, এ বছর পেশাদার সাংবাদিকদের জন্য তুরস্ক ছিল সবচেয়ে কঠোর। সেখানে ৪২ জন সাংবাদিক এবং একজন গণমাধ্যমকর্মীকে আটক করা হয়। সরকারের সমালোচনা করায় এদের বেশিরভাগকে কারাভোগ করতে হচ্ছে।

অন্যদিকে, চীনে ব্লগে লেখালেখি করার জন্য ৫২ জন সাংবাদিক ও ব্লগারকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।