বিশ্ব নবীর শিক্ষায় শান্তি ও সমৃদ্ধি নিশ্চিত হতে পারে-প্রধানমন্ত্রী

Print Friendly

'প্রিয়নবীর শিক্ষা অনুসরণে বিশ্বের শান্তি ও সমৃদ্ধি নিশ্চিত হতে পারে'

 বিশ্বের শান্তি, কল্যাণ ও সমৃদ্ধি নিশ্চিত করার লক্ষ্যে প্রিয়নবী হযরত মোহাম্মদের (সা.) অনুপম শিক্ষার অনুসরণের ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, মহানবী (সা.) এর সুমহান আদর্শ অনুসরণের মধ্যেই প্রতিটি জনগোষ্ঠীর অফুরন্ত কল্যাণ ও সমৃদ্ধি নিহিত রয়েছে।

আজকের অশান্ত ও দ্বন্দ্ব-সংঘাতময় বিশ্বে প্রিয়নবী (সা.) এর অনুপম শিক্ষার অনুসরণের মাধ্যমেই বিশ্বের শান্তি, কল্যাণ ও সমৃদ্ধি নিশ্চিত হতে পারে। ’ পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে  শুক্রবার এক বাণীতে তিনি এ কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মদের (সা.) আগমন ও ওফাতের পবিত্র স্মৃতিবিজড়িত ১২ রবিউল আউয়াল উপলক্ষে মুসলিম উম্মাহর প্রত্যেক সদস্য এবং দেশবাসীকে জানান আন্তরিক শুভেচ্ছা ও মোবারকবাদ।

তিনি বলেন, মহান আল্লাহ ‘আমাদের প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদকে (সা.) এ পৃথিবীতে প্রেরণ করেছেন, ‘রাহমাতুল্লিল আ’লামিন’ তথা সারা জাহানের জন্য রহমত হিসেবে। ’

পৃথিবীতে মানবতার মুক্তিদাতা ও ত্রাণকর্তা হিসেবে তিনি আবির্ভূত হয়েছিলেন উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘মহানবী (সা.) অন্ধকার যুগের সকল আঁধার দূর করে সত্যের আলো জ্বালিয়েছেন। বিশ্ব ভ্রাতৃত্ব প্রতিষ্ঠা, ন্যায় ও সমতাভিত্তিক সমাজ গঠন এবং মানব কল্যাণে নিজেকে নিয়োজিত করে বিশ্বে শান্তির সুবাতাস বইয়ে দিয়েছিলেন। ’

প্রধানমন্ত্রী পবিত্র এই দিনে দেশ, জাতি এবং মুসলিম উন্মাহসহ বিশ্ববাসীর শান্তি ও কল্যাণ কামনা করেন।