থামো সু চি : বন্ধ করো নৃশংসতা

Print Friendly
থামো সু চি, বন্ধ করো নৃশংসতা

মিয়ানমারে নিরীহ-অসহায় রোহিঙ্গাদের নির্বিচারে হত্যা করছে সু চি’র পেটুয়া বাহিনী। নিরীহ শিশু, নারী-পুরুষের ওপর এই নির্যাতন এখনই বন্ধ করতে হবে। এখনই থামো সুচি, বন্ধ করো নৃশংসতা।

শান্তিতে নোবেল জয়ী সু চি’র এই ঘৃণ্য কর্মকাণ্ড রুখে দিতে আন্তর্জাতিকভাবে জনমত গড়তে যে যার জায়গা থেকে ভুমিকা রাখুন। মানবতার বিবেক জাগ্রত করুন।

মিয়ানমারের মাসুম শিশুটির লাশ পানিতে ভাসতে দেখে, বারবার আমার মেয়ের কথা চোখের সামনে ভেসে উঠছে। মিয়ানমারে রোহিঙ্গা গণহত্যা ও নির্যাতনের চিত্র দেখে সহ্য করতে পারিনি।

অনেক শিশু এই বীভৎস দৃশ্য দেখে অসুস্থ হয়ে পড়েছে। আতঙ্কিত হয়ে পড়ছে অনেকে। যারা এই হিংস্র-দানবীয় ঘটনা ঘটাচ্ছে তাদের প্রতি চরম ঘৃণা-ক্ষোভ।

আমার প্রশ্ন হচ্ছে, জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ এখন কি করছে? মিয়ানমারের রোহিঙ্গা মুসলিম জনগোষ্ঠিকে রক্ষায় জাতিসংঘের জরুরী হস্তক্ষেপ প্রয়োজন।

গণহত্যা ও মানবাধিকার লংঘনের অন্যতম হোতা মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু চিকে দেওয়া নোবেল শান্তি পুরস্কার বাতিল করার দাবিতে সোচ্চার হতে হবে।

মিয়ানমারের বিরুদ্ধে অস্ত্র ও বাণিজ্যিক নিষেধাজ্ঞা আরোপের জন্য জাতিসংঘ এবং ওআইসি’র পদক্ষেপ নেওয়া জরুরী। কিন্তু এক্ষেত্রে তাদের প্রতিক্রিয়া বিশ্ববাসীকে হতাশ করেছে।

গণহত্যা ও মানবাধিকার লংঘনের দায়ে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে মিয়ানমারের শাসকগোষ্ঠিকে বিচারের মুখোমুখি করা প্রয়োজন। এ জন্য আমাদেরকে সোচ্চার হতে হবে।

সরকারের পক্ষ থেকে আন্তর্জাতিক ফোরামে এসব বিষয়ে দেশের মানুষের সেন্টিমেন্ট তুলে ধরতে হবে। দেশের সাধারণ মানুষের সেন্টিমেন্টকে অবশ্যই প্রাধান্য দেবে সরকার এমনটা প্রত্যাশা সকলের।

লেখক: সাধারণ সম্পাদক, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ)